Latest News

গুরুংয়ের মেয়ের স্কুল সার্টিফিকেট জাল, আইসিএসসিকে জেলাশাসক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাস্তব ছুঁয়ে ফেলল সিনেমার গল্পকে। এও যেন সেই থ্রি-ইডিয়টসের গল্প। আর অভিযোগ উঠছে, এ কাহিনীর খলনায়ক বিমল গুরুং এবং তাঁর মেয়ে।

বড়লোক বাবার মেধাহীন ছেলের প্রক্সি দিত মেধাবী চাকরের ছেলে ফুঙসুক ওয়াংড়ু। মার্কশিট, সার্টিফিকেট নয়, তার দরকার ছিল শুধু জ্ঞান। আর সেই ফঙসুকের সার্টিফিকেটই নিজের বলে চালায় শিমলার রনছোঁড়দাস চাচঁড়।

সেই একই গল্প এবার দার্জিলিং-এ। অভিযোগের কেন্দ্রে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার ফেরার নেতা বিমল গুরুং এর মেয়ে।

জানা যাচ্ছে তাঁর নাম মোটেও নন্দা গুরুং নয়। বরং অন্নপূর্ণা গুরুং। আইসিএসসি এর ক্লাস টেনের পরীক্ষায় ফেল করার পর স্কুলে ভর্তি হতে তিনি ব্যবহার করেন অন্য এক ছাত্রীর সার্টিফিকেট। বদলে নেন নিজের নামও। সেই ছাত্রীর নামেই নিজের নাম নেন নন্দা গুরুং।

এমনই চাঞ্চল্য কর তথ্য পাওয়া যাচ্ছে স্কুল শিক্ষা দফতরের প্রিন্সিপাল সচিবকে লেখা দার্জিলিং-এর জেলাশাসক জয়তী দাশগুপ্তের লেখা চিঠিতে।

ওই চিঠিতে জানা যাচ্ছে বিমল গুরুং এর মেয়ের নাম আসলে অন্নপূর্ণা গুরুং। ১৯৯৪ সালে, সাত বছর বয়সে তিনি ভর্তি হয়েছিলেন দার্জিলিং-এর মাউন্ট হারমন স্কুলের ক্লাস টুতে। ২০০৪ সালে এই স্কুল থেকে আইসিএসসি পরীক্ষা দেন তিনি। ওই পরীক্ষায় অন্নপূর্ণার ইন্ডেক্স নম্বর ছিল T/ 1354/056। পরীক্ষায় ফেল করেন অন্নপূর্ণা।

ওই বছরই দার্জিলিং এর গ্রিন লনস স্কুল থেকে আইসিএসসি পরীক্ষা দিয়েছিলেন নেপালের রূপান্দেহী জেলার পূর্ণ বাহাদুর গুরুং এর মেয়ে নন্দা গুরুং। তাঁর ইন্ডেক্স নম্বর ছিল T/1352/039।

নন্দা গুরুং এর পাশ সার্টিফিকেট ব্যবহার করেই এরপর এগারো ক্লাসে কার্শিয়ং এর হিমালি বোর্ডিং স্কুলে ভর্তি হন অন্নপূর্ণা। নিজের পরিচয় দেন নন্দা গুরুং বলেই।

হিমালি বোর্ডিং স্কুল এবং গ্রিন লনস স্কুলের কর্তৃপক্ষ সব জেনেও চুপচাপ ছিলেন।

এই ব্যাপারে জয়তী দাশগুপ্তের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্য ওয়াল। তিনি জানান, তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে যে অন্নপূর্ণা জালিয়াতি করেছে। বিষয়টি আইসিএসসি বোর্ডকেও জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। তাঁরাও এই ঘটনার আলাদা তদন্ত করবেন। ব্যবস্থা নেওয়া হবে দার্জিলিং এর হিমালি বোর্ডিং স্কুল এবং গ্রিন লনস স্কুলের বিরুদ্ধেও।

সাব ইন্সপেক্টর অমিতাভ মালিক খুনে অভিযুক্ত গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতা বিমল গুরুং। তারপর থেকেই ফেরার তিনি। তার জায়গায় পাহাড়ের নিয়ন্ত্রণ এখন বিনয় তামাং-এর হাতে। গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে বিমল গুরুং আমলের নিত্যদিনের গণ্ডগোলের থেকে অনেক শান্ত এখন পাহাড়।

এবার মেয়ের বিরুদ্ধে উঠল নাম ভাড়ানোর অভিযোগও। ফলে, দার্জিলিং এর মানুষের কাছে আরও গুরুত্ব হারাবেন গুরুং এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

You might also like