Latest News

Basirhat: মুসলিম ভাইদের দেওয়া জমিতেই শ্মশান পেল বসিরহাটের গ্রাম! ধন্য ধন্য করছেন সকলে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গ্রামে কোনও শ্মশান ছিল না। মৃতদেহ দাহ করতে যেতে হত কখনও ২০ কিলোমিটার, কখনও বা ৩০ কিলোমিটার দূরের অন্য কোনও গ্রামে। বসিরহাটের (Basirhat) দুই নম্বর ব্লকের খোলাপাতা গ্রাম পঞ্চায়েতের মথুরাপুর‌ ও গোবিন্দপুরের বাসিন্দারা তাই দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় একটি শ্মশানের দাবি জানিয়ে আসছিলেন প্রশাসনের কাছে। অবশেষে পূরণ হল তাঁদের সেই দাবি। পাঁচ মুসলিম ব্যক্তির দান করা জমিতে তৈরি হল নতুন শ্মশানটি। এক বিঘা জমির উপরে বৈতরণী প্রকল্পের উদ্যোগে আধুনিক শ্মশান পেল বসিরহাট ২ নম্বর ব্লকের ৮ লক্ষ মানুষ।

আরও পড়ুন: রবিবারও ঝড়বৃষ্টি হতে পারে কলকাতায়, গুমোট গরমে সাময়িক স্বস্তি, বর্ষা কতদূর?

শহরের মতই আধুনিক শ্মশান তৈরি হয়েছে এই গ্রামে (Basirhat)। একদিকে যেমন রয়েছে বিশ্রামাগার, অন্যদিকে তেমনই পরিশোধিত পানীয় জলের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। আগামী শনিবার উদ্বোধন হবে এই শ্মশানের।

তবে এই শ্মশানের বিশেষ তাৎপর্য হল, এর একটি অংশ পাঁচ মুসলিম ভাইয়ের দান করা জমির মধ্য দিয়ে গেছে। তাঁদের দান করা জমিতে একটি কংক্রিটের রাস্তা তৈরি হয়েছে, যা রাস্তা থেকে শ্মশানের মূল প্রাঙ্গণ অবধি বিস্তৃত। এই মুসলিম ভাইদের দান করা জমির ওপর দিয়েই দেহ নিয়ে গিয়ে শ্মশানে শেষকৃত্য করবে হিন্দু পরিবারের লোকজন। এও এক অনন্য সম্প্রীতির বার্তা।

খোলাপোতা (Basirhat) পঞ্চায়েতের প্রধান অপরেশ মুখোপাধ্যায় ও মন্দির কমিটির সদস্য প্রকাশ রায় বলেন, এখানকার বাসিন্দাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল একটি শ্মশানের। অবশেষে সেই কাজ শেষ করা গেছে। জানা গেছে, আগামী শনিবার এখানে শ্মশান উদ্বোধনের পর পাশেই শ্মশানকালীর পুজো হবে। এরপর হবে বালকভোজন। হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে গোটা গ্রামের মানুষ সেই অনুষ্ঠানে অংশ নেবে।

You might also like