Latest News

সাপে কাটা মেয়েকে নিয়ে ওঝার দুয়ারে বাবা-মা! তিলতিল করে শেষ একরত্তি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়েও সচেতনতা যে সব জায়গায় পৌঁছয়নি, তা ফের একবার বাসন্তীর (Basanti) রানিগড় গ্রামের ঘটনা প্রমাণ করে দিল। কালাচ সাপের ছোবল O(Snake bite) খাওয়া শিশুকে নিয়ে হাসপাতালে না গিয়ে ওঝা-গুনীনের কাছে ছুটল বাবামায়েরা। ফলে একেবারে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু (Death) হল সেই শিশুকন্যার। মৃতের নাম রিতু বর্মণ (৩)। ঘটনাটি ঘটেছে বাসন্তী থানার অন্তর্গত জ্যোতিষপুর পঞ্চায়েতের জয়গোপালপুর নতুনহাট সংলগ্ন ২ নম্বর রানিগড় গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, অন্যান্য দিনের মতো বুধবার রাতেও খাবার খেয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েছিল ওই শিশুকন্যা। এদিকে সকলের অগোচরে অনেক আগেই বিছানায় গিয়ে লুকিয়ে আশ্রয় নিয়েছিলে সাড়ে তিন ফুট দৈর্ঘ্যের পূর্ণবয়স্ক একটি কালাচ সাপ। এরপর রাতেই বিছানার মধ্যে আচমকা ওই শিশুকে ছোবল মারে সাপটি। মাঝরাতে রিতুর পেটে ব্যাথা শুরু হতেই সে বাবা-মা’কে ডেকে তোলে। ঘুম ভেঙে উঠেই বিছানার ওপর কালাচ সাপ দেখতে পান তাঁরা। তড়িঘড়ি সাপটিকে মেরে ফেলে মোবাইল ফোনে ছবি তুলে তাঁরা ওই শিশুকে নিয়ে স্থানীয় এক ওঝা গুণীনের কাছে ছোটেন ঝাড়ফুঁক করার জন্য।

এখানেই ঘটে বিপত্তি! ক্রমশ ওই শিশুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। অবশেষে রাত সাড়ে তিনটে নাগাদ ঐ শিশুকে বাসন্তী ব্লক গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শিশুর শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হওয়ায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। ততক্ষণে প্রায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছে রিতু। ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে আনতেই জরুরী ভিত্তিতে ওই শিশুর চিকিৎসা শুরু করেন সর্প বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সমরেন্দ্র নাথ রায় ও ডাক্তার রণবীর মজুমদার। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। সেখানেই মৃত্যু হয় ওই শিশুকন্যার।

ঘটনা প্রসঙ্গে ডাক্তার সমরেন্দ্র নাথ রায় জানিয়েছেন, ‘সঠিক সময়ে হাসপাতালে আনলে ওই শিশুকে বাঁচানো সম্ভব হত। বাসন্তী হাসপাতালের চিকিৎসকরাও চিকিৎসা করার সময় পাননি। ফলে প্রায় বিনা চিকিৎসাতেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। এমন ঘটনা অত্যন্ত বেদনাদায়ক।’

ক্যানিংয়ে তিন তৃণমূলকর্মী খুন, সাতসকালে দাঁড় করিয়ে গুলি

You might also like