Latest News

ধার করে টোটো কেনেন বিধবা মহিলা, ‘পুলিশ দিয়েছে’ বলার জন্য চাপ বাঁকুড়ার প্রৌঢ়াকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্বামীর (Husband) মৃত্যুর (death) পর সংসার চালাতে টোটো (Toto) কিনেছিলেন এক গৃহবধূ (Woman)। সেই টোটোয় চড়ে এলাকা ঘুরলেন থানার ওসি এবং হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। শুধু তাই নয়, টোটোটি থানা থেকে দেওয়া হয়েছে, এমন কথা বলার জন্য় চাপ দেওয়া হল টোটোর মালকিনকে।

ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার কোতুলপুরে। ওই গৃহবধূর নাম সুধা ক্ষেত্রপাল। স্বামী মারা যাওয়ার পর সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন তিনি। তাঁর মেয়ে জাতীয়স্তরে পদকপ্রাপ্ত জিমন্যাস্ট। কিন্তু টাকার অভাবে বন্ধ হয়ে যেতে বসেছিল মেয়ের পড়াশোনা। তাই ঋণ নিয়ে টোটোটি কিনেছিলেন সুধাদেবী। হঠাৎই একদিন সুধাদেবীকে টোটো নিয়ে থানায় আসতে বলা হয়। জানানো হয়, সাজিয়ে দেওয়া হবে টোটোটি।

সেই মতো টোটো নিয়ে থানায় যান সুধাদেবী। তারপর ওই টোটো চেপে এলাকা ঘোরেন কোতুলপুর থানার বিদায়ী ওসি রামনারায়ণ পাল ও কোতুলপুর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক প্রসেনজিৎ সরকার। শুধু তাই নয়, সুধাদেবীর অভিযোগ, প্রসেনজিৎবাবু তাকে জোর করতে থাকেন এটা বলার জন্য, যে, থানার তরফেই টোটোটি কিনে দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

ধার করে কেনা টোটো নিয়ে শিক্ষকের এই অন্যায় আবদারে অত্যন্ত ভেঙে পড়েছেন সুধাদেবী। মর্মাহত তাঁর মেয়ে শিবানী ক্ষেত্রপালও। এরকম কিছু বলার জন্য যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনওরকম চাপ দেওয়া হয়নি। কিন্তু তাহলে কীসের স্বার্থে হাইস্কুলের শিক্ষক হয়েও প্রসেনজিৎ সরকার এমন নির্লজ্জ কাণ্ড এবং অন্যায় আবদার করলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

রেললাইনের লোহার রেলিংয়ে মাথা আটকে গেল শিশুর! মর্মান্তিক কাণ্ড উল্টোডাঙায়

You might also like