Latest News

ধর্ষণ, খুনের চেষ্টার অভিযোগ পরীমণির, গ্রেফতার বাংলাদেশের শিল্পপতি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রীর বিস্ফোরক অভিযোগ সেদেশের শিল্পপতির বিরুদ্ধে। শামসুননাহার স্মৃতি নামে ২৮ বছর বয়সি অভিনেত্রী পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন, ঢাকার এক ক্লাবে তাঁকে ধর্ষণ, এমনকী মেরে ফেলার চেষ্টাও করেছেন শিল্পপতি নাসির ইউ মাহমুদ।

পরীমণি নামেই বেশি পরিচিত এই অভিনেত্রী। তাঁর অভিযোগ পেয়ে পুলিশ গ্রেফতার করেছে রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী তথা ঢাকা বোট ক্লাবের বিনোদন ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক ওই শিল্পপতিকে। ঢাকার উত্তরা এলাকার ওই ক্লাবে চারদিন আগে নাসির তাঁকে যৌন নিগ্রহ করেন বলে সোমবার থানায় অভিযোগ করেন পরীমণি। এব্যাপারে আরও চারজনকে অভিযুক্ত করেছেন তিনি। পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ার আগে পরীমণি ফেসবুক পোস্টে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছেও ন্যয়বিচার প্রার্থনা করেন, রবিবার রাতে সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে প্রকাশ্য আঙুল তোলেন নাসিরের দিকে।

পরীমণির দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ আজ তল্লাসি অভিযান চালিয়ে নাসির ও আরও চারজনকে গ্রেফতার করে। দি ডেইলি স্টার এর খবর, গ্রেফতার হওয়া দুজনের নাম অভিনেত্রীর দায়ের করা এফআইআরে আছে, বাকি তিনজন তাদের সহযোগী।

ঢাকা মেট্রপলিটান পুলিশের ডিটেকটিভ ব্রাঞ্চের যুগ্ম কমিশনার (নর্থ) হারুন অর রশিদ জানিয়েছেন, তল্লাসিতে ঘটনাস্থল থেকে মাদক, অ্যালকোহল পাওয়া গিয়েছে। তাই ৫ জনের নামে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনেও মামলা রুজু করা হবে। হারুনের দাবি, অভিযুক্তরা নানা ক্লাবে পার্টির আয়োজন করত, প্রায়ই সেখানে তরুণীদের ডেকে এনে নিগ্রহ করা হত। এব্যাপারে তাঁরা আরও অনেকের কাছ থেকে মৌখিক নালিশ পেয়েছেন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে। কেউ সরকারি ভাবে অভিযোগ পেশ করলে গোয়েন্দারা আইনি পদক্ষেপ করবেন।

প্রধানমন্ত্রী হাসিনাকে মা বলে উল্লেখ করে পরীমণি ফেসবুক পোস্টে দাবি করেন, তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলির সাহায্য চেয়েও ন্যয়বিচার পাননি। তিনি লেখেন, কোথায় ন্যায়বিচার চাইব? গত চারদিনে তো পেলাম না। প্রত্যেকে বিস্তারিত সব শোনে, কিন্তু পরে আর কিছুই করে না। আমি একটা মেয়ে, অভিনেতা, কিন্তু তার আগেও একটা মানুষ। চুপ করে থাকতে পারব না!

২০১৫য় বাংলাদেশের রূপোলি পর্দায় পা রেখে দ্রুত জনপ্রিয়তা পান তিনি। দু়ডজনের বেশি বাংলাদেশি ছবিতে মুখ্য নারী চরিত্রে তাঁকে দেখা গিয়েছে। গত বছর ফোর্বস ম্যাগাজিন তাঁকে এশিয়ার ১০০ ডিজিটাল স্টারের তালিকায় রেখেছিল।

You might also like