Latest News

‘হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতে ভারতের সাহায্য চেয়েছি,’ বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কথায় বিপাকে দল, সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (Sheikh Hasina) নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারকে টিকিয়ে রাখার জন্য যা যা করা দরকার, সেটি করতে ভারত সরকারকে অনুরোধ করেছি। আমি ভারতে গিয়ে বলেছি, শেখ হাসিনাকে টিকিয়ে রাখতে হবে।’ বাংলাদেশের (Bangladesh) পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমিনের (AK Abdul Momen) এই বক্তব্য ঘিরে ঘরোয়া বিবাদ তুঙ্গে উঠেছে। বিরোধী দলগুলি দাবি করেছে, হাসিনা সরকার ও আওয়ামী লিগকে ব্যাখ্যা দিতে হবে, কেন ক্ষমতায় টিকে থাকতে তাদের ভারতের সাহায্য দরকার হয়।

বাংলাদেশ সরকারের তরফে সরকারিভাবে এখনও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের কোনও ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি। তবে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা ব্যক্তি বিশেষের কথা। সরকার বা দলের কথা নয়। কাদের আওয়ামী লিগের সাধারণ সম্পাদক। ফলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য দলের সাধারণ সম্পাদক খারিজ করে দিয়েছেন। গতকাল চট্টগ্রামে জন্মাষ্টমীর একটি অনুষ্ঠানে মোমেন ওই মন্তব্য করেন। আজ জন্মাষ্টমীরই আর একটি অনুষ্ঠানে কাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের সঙ্গে দল ও সরকারের সম্পর্ক নেই বলে জানিয়ে দেন।

বিরোধীরা অবশ্য তাতে সন্তুষ্ট নয়। তাদের বক্তব্য, প্রশাসনকে সরকারিভাবে ব্যাখ্যা দিতে হবে কেন মোমেন ওই কথা বলেছেন। ঢাকা প্রেস ক্লাবে এক সমাবেশে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী সরকারকে টিকিয়ে রাখার জন্য ভারতের সাহায্য কেন দাবি করেছেন, এর ব্যাখ্যা সরকারের কাছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে, এমনকি ভারত সরকারের কাছেও জানতে চাই।’

বিএনপি নেতা আরও বলেন, ‘আওয়ামী লিগের মিছিল–সমাবেশে মন্ত্রীরা বড় বড় বক্তৃতা করেছেন, হুমকি দিয়েছেন। সন্ত্রাসী ভাষায় কথা বলেছেন। এতই যদি হুমকি দেন, তাহলে আপনাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সরকারকে টিকিয়ে রাখার জন্য ভারতের সাহায্য দাবি করেন কেন।’ তাঁর প্রশ্ন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী যে কথা বলেছেন, সে কথার অর্থ কী? তাতে কি এটা দাঁড়ায় এই সরকার টিকে আছে ভারতের আনুকূল্যে। এই কথার জবাব তো এ দেশের মানুষ জানতেই চাইবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কথার প্রসঙ্গে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, এ কে আব্দুল মোমেন অনেক সময় নিজের অজান্তেই সত্য কথা বলে ফেলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেনের ওই কথা প্রসঙ্গে এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লিগের সাধারণ সম্পাদক কাদের আরও বলেন, ‘ভারত আমাদের সঙ্গে বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ। ভারত আমাদের দুঃসময়ের বন্ধু। ৭১-এ রক্তের বন্ধনে আমরা আবদ্ধ। তাই বলে আমরা ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য ভারতকে অনুরোধ করব—এ ধরনের কোনও অনুরোধ আওয়ামী লিগ করে না, করেনি।’ তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের পক্ষ থেকেও কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। আমাদের সমর্থন, ক্ষমতার উৎস বাংলাদেশের জনগণ।’

নাম না করে পরারাষ্ট্রমন্ত্রীর সমালোচনাও করেছেন আওয়ামী লিগের সাধারণ সম্পাদক। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যিনি এ কথা বলেছেন, এটা তাঁর ব্যক্তিগত অভিমত হতে পারে। আমাদের সরকারেরও বক্তব্য না, দলেরও না। এটা আমি পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিতে চাই।’ তিনি আরও বলেন, ‘এতে ভারতও লজ্জা পায়। কীভাবে আমরা এ কথা বলি? বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কটা ভাল আছে। অহেতুক কথা বলে এটা (বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক) নষ্ট করবেন না।’

আরও পড়ুন: বৃদ্ধের মৃতদেহ আগলে ৩ দিন কাটালেন স্ত্রী, মেয়ে! খুনের সন্দেহে ভাইঝিকে জুতোপেটা পিসির

You might also like