Latest News

Bagtui Violence: ভাদুর বাবা বিস্ফোরক, ‘বাঘের দেশে ভয়ে আছি’

শোভন চক্রবর্তী
সুকমল শীল

বগটুই: অভিশপ্ত সেই রাতের পরেই গ্রাম ছেড়েছিল বগটুইয়ে নিহত তৃণমূল নেতা ভাদু শেখের পরিবার (Bagtui Violence)। বৃহস্পতিবার সেখানে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই ফের গ্রামে নিয়ে আসা হল ভাদুর বাবা মারফত হোসেনকে। সাদা ফতুয়া আর নীল লুঙ্গি পরে ধীরে ধীরে হাঁটছিলেন বৃদ্ধ। সাংবাদিকদের দেখেই বিস্ফোরক সব মন্তব্য করলেন তিনি।

কবরস্থানের উল্টোদিকেই ‘শ্মশান’ হয়েছে বগটুই, গণসমাহিত হয়েছে দেহ

বগটুই গ্রামের যেখানে ভাদু শেখের প্রাসাদোপম বাড়ি, মূল ঘটনাস্থল থেকে তা প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে। আর যেখানে সোমবার রাতে আগুন জ্বালিয়ে নৃশংস হত্যালীলা চলেছে তার ১০ মিটারের মধ্যেই ভাদুদের পুরনো বাড়ি, যেখানে থাকেন তাঁর বাবা ও সৎ মা। এদিন সেই বাড়ির দিকেই ধীর পায়ে এগোচ্ছিলেন মারফত হোসেন। সাংবাদিকরা তাঁকে প্রশ্ন করেন, ‘আপনি কি ভয় পাচ্ছেন?’

উত্তরে রাস্তার উপরে দাঁড়িয়ে বৃদ্ধ বলে ওঠেন, ‘বাঘের দেশে ভয় পাবো না?’

বাড়ির সিঁড়ির সামনে দাঁড়িয়ে অনেক কথা বলেন ভাদু শেখের বাবা। বলেন, বখরার জন্যেই খুন করা হয়েছে তাঁর ছেলেকে। কীসের বখরা? তা আর খোলসা করতে চাননি তিনি।

ভাদুর বাবাকে এরপর প্রশ্ন করা হয়, কোন দলের লোকজন এই খুন করল? জবাব আসে, একটাই তো দল, সিপিএম। এমন উত্তর শুনে চমকে ওঠেন সাংবাদিকরা। বিরোধীশূন্য বীরভূমে সিপিএম কোত্থেকে এল?

পরমুহূর্তেই অবশ্য ভুল শুধরে নেন বৃদ্ধ। বলেন, সিপিএম নয়, সব গুলিয়ে যাচ্ছে। তৃণমূল, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল। আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বীরভূমে এলে তাঁকে সবটা খুলে বলবেন, বিচার চাইবেন বলেও জানিয়েছেন মারফত হোসেন।

সাংবাদিকদের সামনে মাঝেমাঝেই মেজাজ হারাচ্ছিলেন বৃদ্ধ মারফত। তা অবশ্য হওয়ারই কথা। একদিকে ছেলে হারানোর যন্ত্রণা, গত চারদিন ধরে বাড়িছাড়া তিনি, উপরন্তু বীরভূমে এখন প্রবল গরম। সবমিলিয়েই হয়তো মেজাজ ধরে রাখতে পারছিলেন না ভাদুর বাবা। এখন একটাই দাবি তাঁর, ছেলের খুনিদের শাস্তি চাই, বগটুই গ্রামে শান্তি চাই।

You might also like