Latest News

Ashoknagar: ‘বিয়ে নয়, আরও পড়তে চাই’! বিধায়কের দরবারে কাতর আর্তি জুলেখার, ভিজল চোখ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অঙ্কে স্নাতক হয়েছেন। বিএসসি পাশের পর এখন ডিএলএড পড়ছেন অশোকনগরের জুলেখা (Ashoknagar)। তাঁর এলাকায় আর কোনও মেয়ে এতদূর পড়াশোনা করেননি। সকলেরই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। তাই জুলেখাকেও বিয়ের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ। বিধায়কের দরবারে কাঁদতে কাঁদতে এই সমস্যার সমাধানের দাবি জানালেন ওই মেধাবী ছাত্রী।

আরও পড়ুন: বর্ষা নিয়ে কেরলে ঢুকছে মৌসুমী বায়ু, আজও ঝড়বৃষ্টি হতে পারে কলকাতায়

অশোকনগরের (Ashoknagar) বেড়াবেড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে কুঠির আমবাগানে বিধায়কের দরবার বসবে বলে আগেই ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছিল। সেই মতো নির্দিষ্ট স্থানে জড়ো হন প্রচুর মানুষ। বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামীর কাছে সকলে নিজেদের সমস্যার কথা নিয়ে হাজির হন। ওই আসরেই নিজের সমস্যা নিয়ে গিয়েছিলেন জুলেখা।

তাঁর অভিযোগ, তাঁকে বিয়ের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছে। বাড়ি থেকে নয়, পাড়াপ্রতিবেশীরা চাপ সৃষ্টি করছেন বলে জানিয়েছেন জুলেখা। তাঁর এবং তাঁর পরিবারের উপর চাপ দেওয়া হচ্ছে যাতে বাকিদের মতো জুলেখারও বিয়ে দিয়ে দেওয়া হয়।

কিন্তু এখনই জুলেখা বিয়ে করতে চান না। তিনি ডিএলএড করছেন। এরপর চাকরির পরীক্ষায় বসতে চান। আরও পড়াশোনা করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চান জুলেখা। বিধায়কের দরবারে তাঁর করুণ আবেদন তাঁকে যেন কোনও কাজের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। তার মাধ্যমে উচ্চশিক্ষার জন্য অর্থ জোগাতে পারবেন তিনি। বিধায়কের কাছে আবেদন জানাতে গিয়ে চোখ ভিজে আসে জুলেখার। কাতর কণ্ঠে বলেন, আমি এখন বিয়ে করতে চাই না। আরও পড়তে চাই। নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই।

বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী জুলেখাকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন। কথা দিয়েছেন এক সপ্তাহের মধ্যে জুলেখার বাড়িতে যাবেন তিনি। পড়াশোনা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য যা যা করা দরকার সবটাই করা হবে, জানিয়েছেন নারায়ণবাবু।

এদিন অশোকনগরের এই বিধায়কের দরবারে প্রায় ৩০০ মানুষ এসেছিলেন। অনেকেই আবাস যোজনা নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন। রূপোশ্রী প্রকল্পের টাকা না পাওয়ার অভিযোগও জমা পড়েছে। সংশ্লিষ্ট স্থানে সেসব দাবিদাওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছেন বিধায়ক।  

You might also like