Latest News

আমরা কি জানোয়ার! প্রতিবাদে ফেটে পড়েছেন কোভিড রোগীরা, অমানবিক আচরণের অভিযোগ প্রয়াগরাজের হাসপাতালে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিড রোগীদের প্রতি চরম অবহেলা, জুটছে না খাবার বা জলও! পশুদের থেকেও খারাপ আচরণ করা হচ্ছে তাঁদের সঙ্গে। এমনই অভিযোগ উঠল উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজের একটি সরকারি হাসপাতালে। সেখানকার একটি ভিডিও ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে দেখা যাচ্ছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে রীতিমতো প্রতিবাদে সামিল রোগীরা।

তিন মিনিটের ওই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, প্রয়াগরাজের কোটোয়া বানি এলাকার একটি কোভিড হাসপাতালের রোগীরা অভিযোগ করছেন, মানুষ হিসেবে ন্যূনতম সুবিধাটুকুও পাচ্ছেন না তাঁরা। জানোয়াকেক চেয়েও অধম ব্যবহার করা হচ্ছে তাঁদের সঙ্গে। খাবার জোটে না ঠিক মতো, দু’ঘণ্টা ধরে বন্ধ জল সরবরাহও। “আমরা কি জানোয়ার? আমাদের জলের দরকার নেই?”– চিৎকার করতে শোনা গেছে এক কোভিড রোগীকে।

ওই ভিডিওটি যিনি করছিলেন তিনি প্রতিবাদীদের উদ্দেশে প্রশ্ন করেন, “আপনারা কি খাবার পাচ্ছেন ঠিকমতো?” এ প্রশ্নের উত্তরেও তাঁরা সমস্বরে জবাব দেন, “না!” তাঁরা দাবি করেন, আধসেদ্ধ খাবার খেতে হচ্ছে তাঁদের। কাউকে কাউকে বলতে শোনা যায়, টাকার বিনিময়ে পরিষেবা মিললে তাই যেন দেন কর্তৃপক্ষ। “টাকা না থাকলে আমাদের থেকে নাও। কিন্তু এরকম চললে আমরা বাড়ি চলে যাব!”– চিৎকার করতে শোনা যায় এক মহিলাকে।

প্রয়াগরাজের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক অবশ্য দাবি করেছেন, জলের সমস্যা দু’ঘণ্টায় মিটে গিয়েছিল। আর কোনও সমস্যা নেই। তাঁর কথায়, “বিদ্যুৎ বিভ্রাটের জন্য সরাসরি জল সরবরাহে সমস্যা হয়েছিল। আমরা দু’ঘণ্টায় মিস্ত্রি ডেকে সারিয়ে নিয়েছি। এমনিতে হাসপাতালের ট্যাঙ্কে জল ছিল। কিন্তু রোগীদের দাবি স্নানের জন্য তাঁদের সরাসরি ফ্রেশ জল এনে দিতে হবে। আমরা দ্রুত দাবি পূরণ করেছি।”

অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগেও কোভিড হাসপাতালের অব্যবস্থার চিত্র সামনে এসেছে উত্তরপ্রদেশে। এমনই একটি ঘটনা কয়েক দিন আগেই ঘটেছিল আগরার এটাওয়া জেলায়। কয়েক দিন আগেই এই সমস্ত প্রতিবাদের ও ভিডিওবার্তার জেরে কোভিড হাসপাতালে মোবাইল ফোন ব্যবহারেই নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছিল যোগী সরকার। সমালোচনার মুখে সে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বাধ্য হয় তারা।

You might also like