Latest News

পানাগড় পেরোতেই কনভয়ে কাঁদলেন কেষ্ট, ভেঙে পড়েছেন বীরভূমের ‘স্ট্রংম্যান’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কত ভোট তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন হাসতে হাসতে। নির্বাচন কমিশন তাঁকে নজরবন্দি করলেও তিনি ছিলেন স্বমহিমায়। নির্বাচনের এলেই তিনি চড়াম চড়াম ঢাক বাজানোর কথা বলতেন। কখনও আবার পাচনের বাড়ি দেওয়ার কথা শোনা যেত তাঁর গলায় (Anubrata Mondal)। সেই তিনি অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্ট আর স্নায়ুর চাপ ধরে রাখতে পারলেন না। সিবিআইয়ের কনভয়েই বসে কান্নায় ভেঙে পড়লেন তিনি।

বৃহস্পতিবার আসানসোলের বিশেষ আদালত অনুব্রতকে দশ দিনের সিবিআই হেফাজত দিয়েছে। তারপর তৃণমূলের বীরভূম জেলার সভাপতিকে নিয়ে আসা হচ্ছে নিজাম প্যালেসে। এজেসি বোস রোডের এই বাড়িতেই আগামী দশ দিন জেরা চলবে অনুব্রতর। কিন্তু সিবিআই সূত্রের খবর, কনভয় পানাগড় পেরোনোর পরেই কান্নায় ভেঙে পড়েন অনুব্রত।

সিবিআইয়ের (CBI) গাড়িতে বসে থাকা অনুব্রতর ছবি সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায় দেখেই ঠাওর করা যাচ্ছে বিমর্ষ হয়ে পড়েছেন তিনি। সিবিআই সূত্রে এও জানা গিয়েছে, মেয়ে রুবাইকে ফোন করতে চেয়েছিলেন অনুব্রত। কিন্তু তাঁকে সেই অনুমতি দেওয়া হয়নি।

ইতিমধ্যেই বিরোধীরা কটাক্ষ করে বলেছে, এতদিন যিনি কথায় কথায় লোককে গাঁজা কেসে জেলে ঢোকাতেন আজ তিনি নিজেই হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন।

অনেকের মতে, কনভয়ে বসে বীরভুমের দাপুটে নেতা সিবিআই আধিকরিকদের থেকে জানতে পেরেছেন, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, সমীর চক্রবর্তীরা সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দিয়েছেন, পার্টি অনুব্রতর পাশে নেই। তাঁকে একাই লড়াই করতে হবে। হতে পারে অনুব্রত একা হয়ে যাওয়ার কথা ভেবেই কেঁদে ফেলেছেন। বুঝেছেন, তাঁর পাশে এখন কেউ নেই। কেউ না।

অনুব্রতর অনুরোধ সিবিআইকে, রুবাইকে একটা ফোন করতে দেবেন!

You might also like