Latest News

Anis Khan Death: রাজ্যের সিভিক ভলান্টিয়ারদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন খোদ অ্যাডভোকট জেনারেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যের সিভিক ভলান্টিয়ারদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন খোদ অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়। মঙ্গলবার আনিস খান মৃত্যুর মামলায় (Anis Khan Death) রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল জানিয়েছেন যে, সিভিক ভলান্টিয়ার নিয়োগ বন্ধ করার কথা বারংবার বলা সত্ত্বেও এই নিয়োগ বন্ধ করা হয়নি।

আরও পড়ুন: ‘উপরে পালংশাক, নীচে বন্দুক’, রেল নিয়ে খড়্গপুর পুলিশকে সতর্ক করলেন মমতা

এদিন কলকাতা হাইকোর্টে বিচারপতি রাজশেখর মান্থার বেঞ্চে আনিস খান মৃত্যু মামলার শুনানি ছিল। সেই শুনানিতেই রাজ্যের সিভিক ভলান্টিয়ারদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অ্যাডভোকেট জেনারেল। তাঁর সুর টেনেই এদিন বিচারপতি রাজশেখর মান্থা জানিয়েছেন, সিভিক ভলান্টিয়াররা চুক্তিভিত্তিক চাকরি করেন। তাঁদের কি আদৌ দায়িত্ববোধ থাকতে পারে? রাজ্য সব তদন্ত সঠিকভাবে করছে? কোথায় কী ত্রুটি সেটা কি সামনে এনেছে? সেটার পরেও কি স্বাধীন সংস্থার প্রয়োজনীয়তা আছে? অ্যাডভোকেট জেনারেলের কী মনে হয় এ ব্যাপারে, তাও জিজ্ঞাসা করেছেন বিচারপতি।

বিচারপতির প্রশ্নে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল জানান, “রাজ্য এর থেকে বেশি কী করতে পারে! আমরা কেস ডায়েরি দিয়ে দিচ্ছি। আদালত দেখুক কোথায় কী ভুল আছে। প্রতিদিন কম করে ২০টি মামলা দেখা যাচ্ছে, যেখানে বলা হচ্ছে রাজ্যের ওপর ভরসা নেই।”

আনিস খান খুনের মামলায় এদিন পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি রাজশেখর মান্থার তিনি অ্যাডভোকট জেনারেলের কাছে জানতে চান, “আপনার অফিসার কোন তলায় ছিল। পড়ে যাওয়ার পর পুলিশ অফিসারদের ভূমিকা কী ছিল?”

সেই প্রশ্নের উত্তরে সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় বলেন, “আমি স্বীকার করছি ঘটনাস্থলে পুলিশ উপযুক্ত ভূমিকা পালন করেনি। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া উচিত ছিল। রেড আইন মাফিক হয়নি।” সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “আনিসকে খুন করা হয়েছে এমন কোনও তথ্য তদন্তে উঠে আসেনি।” তবে তারপরেই সিভিক ভলান্টিয়ারদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অ্যাডভোকেট জেনারেল। এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে আগামী ৭ জুন।

উল্লেখ্য, রাজ্যের থানাগুলিতে যেভাবে সিভিক ভলান্টিয়ার নিয়োগ হয়েছে এবং রাস্তাঘাটে এই সিভিক ভলান্টিয়াররা সাধারণ মানুষদের সঙ্গে যেমন ব্যবহার করেন তা নিয়ে বারংবার অভিযোগ উঠেছে। এবং রাজ্যের জেলাগুলিতে সিভিক ভলান্টিয়ারদের দৌরাত্ম্য নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। এমনকি রাজ্যে ঘটা বেশ কয়েকটি ঘটনায় সিভিক ভলান্টিয়ারদের বৈধতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। অভিযোগ, এই সিভিক ভলান্টিয়ার পদে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই রাজ্যের শাসক দলের ক্যাডারদের নিয়োগ করা হয়েছে।

You might also like