Latest News

Agri Horticulture Society: রবারের পথ, বয়স্কদের হাঁটার জন্য পৃথক রাস্তা, সাজছে হর্টিকালচার সোসাইটির বাগান

দ্য ওয়াল ব্যুরো

প্রাতঃভ্রমণকারীদের সুবিধার জন্য এবার নতুনভাবে সেজে উঠেছে আলিপুরের (Alipore) হর্টিকালচার সোসাইটি (Agri Horticulture Society)। লাল রঙের মসৃণ রাস্তা তৈরি হয়েছে। এই রবারের পথ (Rubberised track), যা শহরের (Kolkata) কোনও বাগানে এর আগে দেখা যায়নি। পাশাপাশি জগারদের জন্য তৈরি হচ্ছে ৪০০ মিটারের ট্র্যাক।

(Agri Horticulture Society) কী এই রবারের ট্র্যাক?

ট্র্যাকটি এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে, যাতে বয়স্কদের হাঁটতে সুবিধা হয়। রাস্তার দৈঘ্য হবে ৭০০ মিটার, ৩.৬-৩.৮ মিটার প্রস্থ। রাস্তা দিয়ে হাঁটার সময় হাঁটুতে তেমন চাপ পড়বে না, যা প্রবীণ মানুষ এবং যাঁদের হাঁটুর সমস্যা আছে তাঁদের ক্ষেত্রে উপকার দেবে।

এমনিতেই বাগানটির সৌন্দর্য্যের জন্য নামডাক আছে। এবার তার পাশাপাশি যুক্ত হচ্ছে ফিটনেস প্রকল্প। যার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এই বিশেষ রাস্তা তৈরির কাজ শুরু হয়েছে।

শুধু বয়স্কদের জন্য নয়, তরুণদের জন্য আলাদা জগার ৪০০ মিটার ট্র্যাক তৈরি করা হচ্ছে। মূলত, আগে যে রাস্তাটি ছিল সেখানে সবাইকে একসঙ্গে যাতায়াত করতে হত। জগারদের জন্য মাঝে মাঝেই প্রবীণদের অসুবিধার মধ্যে পড়তে হত। সেই সমস্যা সমাধানে উদ্যোগী হল ২০০ বছরের এই পুরোনো পার্কটি।

এই পার্কের সেক্রেটারি সন্দীপ সাহার কথায়, ‘প্রবীণ ব্যক্তিরা প্রায়শই তরুণ জগার বা রানারদের সঙ্গে একই ট্র্যাকে চলাচল করতে বিরক্তবোধ করতেন। সেই নিয়ে অভিযোগ আসছিল। সেই জন্য আলাদা ট্র্যাক তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

এই ট্র্যাকে হেঁটে খুশি নিয়মিত প্রাতঃভ্রমণকারীর কথায়, ‘এমনি রাস্তার চেয়ে এই রাস্তায় হাঁটা অনেক বেশি আরামদায়ক।’ পাশাপাশি, আরেকজন প্রবীণ প্রাতঃভ্রমণকারী বলেন, ‘দুটি ট্র্যাক আলাদা হওয়ায় খুব ভাল হয়েছে।’

তবে অনেকেই অভিযোগ করছেন যে, এর ফলে পার্কের সবুজায়ন নষ্ট হচ্ছে। এক প্রবীণ প্রাতঃভ্রমণকারীর কথায়, ‘এটি হাঁটার জন্য সত্যিই ভাল। কিন্তু এরফলে বাগানের ক্ষতি হচ্ছে। বহু মানুষের ভিড়ও হচ্ছে।’

এই অভিযোগ অস্বীকার করে সোসাইটির সভাপতি ভরত বাজোরিয়া বলেন, ‘আমরা এই কাজের পাশাপাশি, বাগানে আরও গাছ লাগাচ্ছি।’

ছাতা, জলের বোতল নিয়ে বইমেলায়, বইয়ের পাশাপাশি হজমি কিনছেন বহু মানুষ

You might also like