Latest News

মেঘালয়েও কংগ্রেসে তৃণমূলের থাবা, কথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল শর্মার সঙ্গে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আর একটি রাজ্যে কংগ্রেসকে ভাঙানোর চেষ্টা শুরু করল তৃণমূল (TMC)। এবার তাদের টার্গেট মেঘালয় (Meghalaya)। সেখানে বিরোধী দল নেতা তথা কংগ্রেসের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমা য় ১৩জন বিধায়ককে নিয়ে তৃণমূলে যোগদান করতে পারে বলে শিলংয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর, গত সপ্তাহে কলকাতায় এসে মুকুল তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে কথা বলে গিয়েছেন। যদিও তৃণমূল নেতৃত্ব এই ব্যাপারে এখনও প্রকাশ্যে কিছু বলতে নারাজ। দু’দিন আগেই গোয়ার প্রাক্তন কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী লুজিনহো ফেলেইরো কলকাতায় এসে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন।

যদিও শুক্রবার মুকুল এই খবরকে নিছকই জল্পনা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। সেই সঙ্গে বলেছেন, দলে কিছু লোকের ক্ষোভ বিক্ষোভ আছে। সেগুলি চার দেওয়ালের মধ্যে আলোচনা করে মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। যদিও রাজনৈতিক মহলের খবর, মুকুল আসলে বুঝে নিতে চাইছেন দলত্যাগ করার পর বিধানসভায় তাঁর অবস্থান কী হতে পারে।

মুকুল সাংমা ২০১০ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। ২০১৮-র নির্বাচনে কংগ্রেস সংখ্যা গরিষ্ঠতা না পেলেও একক বৃহত্তম দল হয়। ১৯টি আসন তাদের দখলে আসে। কিন্তু লোকসভার প্রাক্তন স্পিকার প্রয়াত পূর্ণ সাংমার দল ন্যাশনাল পিপলস পার্টি ছোট দলগুলির সঙ্গে বোঝাপড়া করে ৩৪জন বিধায়কের সমর্থন আদায় করে সরকার গড়ে। সাংমার ছেলে কারনাডই বর্তমানে ওই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

২০২৩-এ সেখানে বিধানসভার ভোট। তৃণমূল চাইছে বিধানসভা ভোটের আগেই মেঘালয়ে বিরোধী দলের তকমা আদায় করে নেওয়া। মুকুল সাংমাও বুঝে নিতে চাইছেন দল ছাড়লে তাঁর বিরোধী নেতার মর্যাদা থাকবে কিনা। কংগ্রেসের ১৯ বিধায়কের মধ্যে ১৩জনের তিনি সমর্থন আদায় করে নিয়েছেন বলে খবর। উত্তর-পূর্বের এই রাজ্যটিতে তৃণমূল একেবারে নতুন দল নয়। স্বয়ং পূর্ণ সাংমা একবার তৃণমূলের টিকিটে ওই রাজ্য থেকে লোকসভায় যান।

You might also like