Latest News

সনিয়াকে দুর্গামূর্তি উপহার দিলেন অধীর, ফের দুর্গতিনাশিনী হয়ে উঠতে পারবেন কি তিনি!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলাদেশ যুদ্ধের পর সংসদে দাঁড়িয়ে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে (Sonia Gandhi) মা দুর্গার সঙ্গে তুলনা করেছিলেন অটলবিহারী বাজপেয়ী। সেই সংসদ ভবনে কংগ্রেস পরিবারে ফের ফিরে এল মা দুর্গার স্মৃতি। বুধবার সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শুরুতে সনিয়া গান্ধীকে দুর্গা মূর্তি উপহার দিয়ে স্বাগত জানালেন লোকসভায় কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী (Adhir Chowdhury)।

মূর্তিটি নদিয়ার শিল্পী পরেশ পালের হাতে তৈরি। সেটিই ফ্রেম করে কংগ্রেস সংসদীয় দলের সভানেত্রীকে উপহার দিয়েছেন অধীর।

কংগ্রেসের সভাপতি পদে কদিন আগেই নির্বাচিত হয়েছেন মল্লিকার্জুন খাড়্গে। কিন্তু তার পরেও সাবেক দলের অভ্যন্তরীণ রসায়নে সনিয়া গান্ধীই যে সবচেয়ে শক্তিধর তা নিয়ে সন্দেহ নেই। ব্যক্তিগত ভাবে অধীর চৌধুরীও মনে করেন, সনিয়া গান্ধীর বয়স হলেও দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখা এবং ফের বৃদ্ধির পথে ফেরানোর একমাত্র কাণ্ডারি হতে পারেন তিনিই। তাঁর সনিয়াই দলের দুর্গতিনাশিনী হতে পারেন। ঠিক যেভাবে পনেরো বছর আগে কংগ্রেসকে পুনরুজ্জীবিত করতে অনুঘটকের ভূমিকা নিয়েছিলেন রাজীবপত্নী।

২০০৪ সালে লোকসভা ভোটের আগেও কংগ্রেস সাংগঠনিক ও সংখ্যার তাকতে খুব একটা সুবিধাজনক জায়গায় ছিল না। সে সময়ে কেন্দ্রে বাজপেয়ী সরকার চলছে। ‘ভারত উদয়’ ও ‘ফিল গুড’ নিয়ে প্রচারে ব্যস্ত প্রমোদ মহাজন, বেঙ্কাইয়া নায়ডুরা। কিন্তু সনিয়া গান্ধী যে রামধনু ঐক্য গড়ে তুলতে পেরেছিলেন বিরোধী শিবিরে সেটাই সোনা ফলিয়েছিল। তার পর বামেদের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করেছিল কংগ্রেস।

তাৎপর্যপূর্ণ হল, সনিয়া এদিন যখন সংসদে পৌঁছেছেন তখন বিরোধী ঐক্যের একটা স্পষ্ট ছবি দেখা গিয়েছে। গত প্রায় এক বছর ধরে দেখা যাচ্ছিল, বিরোধী শিবির কয়েক খণ্ডে বিভক্ত। কংগ্রেসের ডাকা কর্মসূচিতে থাকছে না তৃণমূল ও আপ। কিন্তু বুধবার দেখা যায় মল্লিকার্জুন খাড়্গের ডাকা বৈঠকে উপস্থিত রয়েছেন তৃণমূল ও আম আদমি পার্টির লোকসভার নেতা।

এর আগে সনিয়া গান্ধীকে প্রতিবার পুজোয় শাড়ি দিতেন অধীর চৌধুরী। সম্ভবত গত পুজোতেও তা দিয়েছেন। তবে সংসদের অধিবেশন শুরুর আগে এরকম উপহার দিয়ে স্বাগত জানানো সম্ভবত এই প্রথম বার।

মোদীর মন্ত্রীর ফোন দিদির মন্ত্রীকে, ‘একশ দিনের টাকা এবার পেয়ে যাবেন, প্রসেস শুরু হয়েছে’

You might also like