Latest News

আজ ত্রিপুরা যাওয়া হল না অভিষেকের, সায়নীর গ্রেফতারি নিয়ে উত্তাল রাজনীতি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সোমবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (abhisek bannerjee) ত্রিপুরায় যাওয়ার কথা ছিল কিন্তু তার আগের দিনই সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করেছে আগরতলা পুলিশ। এই ঘটনার জেরে রবিবারেই ত্রিপুরা যাবেন বলে ঠিক করেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়। তবে শেষমেশ মেলেনি তাঁর বিমান অবতরণের অনুমতি, তাই যাওয়া হয়নি আজ রাতে। কাল, সোমবারই ত্রিপুরা যাবেন তিনি।

উত্তর-পূর্বের কয়েকটি রাজ্যের বিমানবন্দরে সন্ধ্যা ৭টার পর বিমান ওঠানামা বন্ধ থাকে। তার মধ্যে পড়ে আগরতলা বিমানবন্দরও। তবে অভিষেক রাত ৮টায় বিশেষ বিমানে আগরতলা যেতে চেয়েছিলেন। সেই বিশেষ বিমান নামার অনুমতি দেওয়া হয়নি অভিষেককে। ফলে আগামী কালই যাবেন তিনি।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সায়নীর বিরুদ্ধে ৩০৭ নং ধারা দেওয়া হয়েছে। প্রাণনাশের চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে তৃণমূলের যুব নেত্রীর বিরুদ্ধে। ঘটনার সূত্রপাত শনিবার। ওইদিন সন্ধে সওয়া সাতটা নাগাদ আশ্রম চৌমহনী দিয়ে যাচ্ছিলেন সায়নী ঘোষ। ওই সময় সেখানে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভা চলছিল। অভিযোগ সাদা স্কর্পিওতে চড়ে সায়নীরা ধেয়ে আসে বিপ্লব দেবের সভার দিকে। এতে মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয়েছে। আবার হিট অ্যান্ড রানের অভিযোগও আনা হয়েছে।

চুঁচুড়ার কুম্ভকর্ণ! পুলিশ এসে, তালা ভেঙে ঘুম ভাঙাল

ওই ঘটনার জেরেই সায়নী ঘোষকে আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায় তলব করে পুলিশ। দীর্ঘক্ষণ জেরার পর সায়নীকে খুনের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়।

যদিও সন্ধ্যার ওই ঘটনার ভিডিও নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন সায়নী ঘোষ। সেখানে, তাঁর গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ ও গাড়িতে কিছু দিয়ে আঘাতের শব্দ পাওয়া গিয়েছে। সায়নীকেও বলতে শোনা গিয়েছে, খেলা হবে।

তিনি লেখেন, ‘ত্রিপুরার “মুখ্য” মন্ত্রীর সভায় হাতে গুনে ৫০ জন লোক। এর থেকে বেশি আমাদে ক্যান্ডিডেটদের সভায় দেখা যাচ্ছে। ত্রিপুরার মা-মাটি-মানুষের সমর্থনে চোখে চোখ রেখে খেলা হবে ও বিজেপির গুন্ডারাজের অবসান ঘটবে। পুনশ্চ: গাড়ি কিছুটা আঘাত প্রাপ্ত কিন্তু আমি, সুদীপ ও অর্পিতা ঘোষ অক্ষত।’

অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, থানায় সায়নী ঘোষকে জেরার সময়ই হামলা চালানো হয়। তৃণমূলের অভিযোগ থানায় ডেকে এনে চক্রান্ত করে মারার চেষ্টা করা হয়।

ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দাবি করা হয়েছে, অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে সায়নী ঘোষকে। ভিত্তিহীন অভিযোগ, রাজনৈতিক সিদ্ধান্তেই গ্রেফতার। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ পুরো দল সায়নীর পাশে রয়েছে।

সায়নী ঘোষকে রবিবার গ্রেফতার করা হলেও আদালতে পেশ করা হচ্ছে না। এমনিতেই বিজেপির বিরুদ্ধে হামলা ও প্রচারে বাধার অভিযোগ তুলছিল তৃণমূল। সায়নীর গ্রেফতারিতে পুরভোটের আগেই উত্তপ্ত ত্রিপুরা।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like