Latest News

অভিষেক নতুন কর্মসূচি দিলেন দলকে, ‘বেইমান মুক্ত মেদিনীপুর’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শনিবার কাঁথিতে সভা করে পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূল নেতা কর্মীদের নতুন কর্মসূচি দিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhihek Banerjee)। তাঁর নির্দেশ, গোটা ডিসেম্বর মাস জুড়ে মেদিনীপুরের প্রতিটা ব্লকে, পাড়ায়, বুথে যেন এই কর্মসূচি পালন করেন তৃণমূল কর্মীরা। দলের সঙ্গে যাঁরা বেইমানি করেছেন তাঁদের রাজনৈতিক ভাবে মেদিনীপুর ছাড়া করতে হবে।

একুশের ভোটের আগে এমনই ডিসেম্বর মাসে তৃণমূল (TMC) ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। সেদিনটা ছিল ১৯ ডিসেম্বর। অভিষেক এদিন বলেন, আজকের দিনটা তাৎপর্যপূর্ণ। আজ শহিদ ক্ষুদিরাম বসুর জন্মদিন। মেদিনীপুরের মাটি স্বাধীনতা সংগ্রামীদের আর্শীর্বাদ ধন্য মাটি। কিন্তু ঘটনা হল, যেখানকার মানুষ ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন, সেখানকারই একজন তাদের পা চাটছে যারা ব্রিটিশের দালালি করেছে।

এ কথা বলেই অভিষেক বলেন, শুভেন্দু অধিকারীকে (Suvendu Adhikari) আগামী পাঁচশ বছর ধরে বাংলার মানুষ মীরজাফর বলে চিনবে। যিনি ইডি, সিবিআই থেকে পিঠ বাঁচাতে বিজেপির পা ধরে নিয়েছেন।

সাংগঠনিক ভাবে তৃণমূলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) পরই এখন অভিষেক। তাঁর এই নির্দেশের পর রবিবার থেকে জেলার তৃণমূল কর্মীরা নতুন কর্মসূচি নিয়ে যে নেমে পড়বেন তা নিয়ে সংশয় নেই। তবে রাজনৈতিক পর্য়বেক্ষকদের অনেকের মতে এর নেপথ্যে মূলত দুটি কারণ রয়েছে। এক, মেদিনীপুর -তৃণমূলে এখনও অনেকে রয়েছেন যাঁরা হয়তো তলে তলে শুভেন্দুর সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন। তাঁদের চিহ্নিত করতে চাইছেন অভিষেক। এবং দুই, মেদিনীপুরে তৃণমূলের সংগঠনকে আরও সক্রিয় করে শুভেন্দুদের চাপে ফেলতে চাইছেন। কারণ, এই জেলার দুটি লোকসভা আসনে এখন অধিকারী পরিবারের দু’জন সাংসদ রয়েছেন। সেই এলাকাগুলোতে অধিকারীদের ভিতে ধাক্কা দিতে থাকলে শুভেন্দু এখানে আরও বেশি নজর দিতে হবে। তাই শুভেন্দুকে মেদিনীপুরে বেঁধে রাখারও এটা কৌশল হতে পারে বলে মত তাঁদের।

অভিষেকের বিস্ফোরক অভিযোগ, ‘ইডি-সিবিআই থেকে জামিন করাবে বলে টাকা তুলছে’

You might also like