Latest News

গভীর রাতে প্রৌঢ়ার মুখ বেঁধে গণধর্ষণ, চিত্তরঞ্জনের ঘটনায় গ্রেফতার দুই যুবক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাতের অন্ধকারে বাড়িতে ঢুকে প্রৌঢ়ার মুখ বেঁধে তাঁকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল চিত্তরঞ্জন এলাকায়। বুধবার রাতের এই ঘটনায় দুই অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, চিত্তরঞ্জন এলাকার ৪৩ নম্বর রাস্তার রাধাকৃষ্ণ মন্দির সংলগ্ন কলেজ মোড়ে একটি মাটির ঝুপড়িতে থাকেন ৫০ বছরের ওই মহিলা। তাঁর স্বামী মিলন মণ্ডল দিনমজুর হিসেবে কাজ করেন। তিনি পার্শ্ববর্তী মিহিজাম এলাকায় তাঁদেরই অন্য এক বাড়িতে ছিলেন বুধবার রাতে। তাঁদের ২৮ বছরের ছেলে কর্মসূত্রে দিল্লিতে থাকেন এবং ৩০ বছরের মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। তাই চিত্তরঞ্জনের বাড়িতে একাই ছিলেন মহিলা।

স্থানীয় সূত্রের খবর, ওই মহিলা মাটির ঘরে থাকেন এবং ছাগল পালন করেন। ওটাই তাঁর ব্যবসা। ৩০টা মতো ছাগল আছে তাঁর। রাত্রে ছাগল চুরি হয়ে যাওয়ার ভয়ে, পাহারা দেওয়ার জন্য ঘরের বাইরে বারান্দায় শুতেন তিনি। পুলিশের কাছে ওই মহিলা জানিয়েছেন, বুধবার রাত্রেও তিনি বারান্দায় শুয়ে ছিলেন। হঠাৎ মানুষের পায়ের আওয়াজে তাঁর ঘুম ভাঙে। তিনি শুনে ভাবেন তাঁর ছাগল চুরি করতে এসেছে কেউ।

মহিলার দাবি, তিনি তড়িঘড়ি করে উঠতে গেলে হঠাতই দুই যুবক তাঁকে ধরে ফেলে মুখ বেঁধে দেয়। এর পরেই ওই দু’জন তাঁকে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ তাঁর। তার পরে তারা পালিয়ে যায়। ওই রাতেই তিনি স্থানীয় এক নেতাকে গোটা ঘটনাটি জানান। তার পরে আজ, বৃহস্পতিবার সকালে চিত্তরঞ্জন থানায় দুই যুবকের নামে অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠায় পুলিশ।

অভিযোগকারিণী মহিলা পুলিশকে জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা রীতিমতো ছক কষেই তাঁকে আক্রমণ করেছিল। কারণ প্রমাণ যাতে সহজে না পাওয়া যায় সেজন্য তারা কনডোম ব্যবহার করেছিল। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এই দুই যুবকের বিরুদ্ধে আগেও ছাগল চুরির একটি নির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া গিয়েছিল।

অভিযোগ পাওয়ার পরে দুই যুবকের খোঁজ শুরু করে পুলিশ। শেষে চিত্তরঞ্জন এবং মিহিজাম এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়। তাদের বয়স ৩০ এবং ১৮। রুজু হয়েছে জামি-অযোগ্য ধারায় মামলা। বিচারক পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে।

You might also like