Latest News

হুগলিতে তৃণমূল কর্মী খুন: পরিবার বলছে পরকীয়ার জের, দল বলছে বিজেপি মেরেছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, হুগলি: সাতসকালে তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) কর্মীর দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল হুগলির (Hooghly) পুরশুড়ায়। এই অস্বাভাবিক মৃত্যুকে (murder) ঘিরে রহস্য দানা বেঁধেছে। স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, ওই ব্যক্তির মাথা ও দেহ আলাদা জায়গা থেকে উদ্ধার হয়েছে। ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধেই খুনের অভিযোগ তুলেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। যদিও বিজেপির দাবি, খুনের তদন্ত করে দেখা হোক।

মৃতের নাম শেখ মহম্মদ রফিক ওরফে সাহেব। বয়স ২৯ বছর। পুরশুড়ার সোদপুর রাউতারা গ্রামে বাড়ি ওই ব্যক্তির। জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে সাহেব ও তাঁর এক বন্ধু শুভাশিষ ভৌমিক বাইক নিয়ে বেরিয়েছিল। রাত বারোটা নাগাদ বাড়ি ফেরার সময় তোকিপুরে সাহেবকে তিনি নামিয়ে দিয়ে চলে যান। এরপর আর দু’জনের মধ্যে কোনও কথা হয়নি।

এদিকে বুধবার সাতসকালে তোকিপুর হল্ট স্টেশনে উদ্ধার হয় সেই তৃণমূল কর্মীর গলাকাটা দেহ। সেখান থেকে প্রায় ছ’শো মিটার দূরে একটি ঝোপে মেলে তাঁর মুণ্ডুও। এই ঘটনায় সকাল থেকেই উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। সাহেবের পরিবার জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাত আটটা নাগাদ শেষবার ফোন করেছিল সাহেব। ফোনে তাঁর মায়ের সঙ্গে কথা হয়।

নন্দীগ্রামে দিনমজুরের বাড়ি থেকে লক্ষাধিক টাকা ও গয়না উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ

মৃতের স্ত্রী সুন্দরী বেগম জানান, তোকিপুরের এক তরুণীর সঙ্গে সাহেবের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়েটির সঙ্গেই গতকাল ভীষণ ঝগড়া হয় তাঁর স্বামীর। সাহেবের মৃত্যুর জন্য ওই মেয়েটিই দায়ী। এর মধ্যে কোনও রাজনৈতিক কারণ নেই বলেই জানাচ্ছেন সুন্দরী বেগম। যদিও আরামবাগের তৃণমূল চেয়ারম্যান জয়দেব জানার অভিযোগ, সাহেব তাঁদের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। বিজেপি এখন হিংসার রাজনীতি করছে, তাই সাহেবকে খুন করা হয়েছে।

যদিও সেই অভিযোগ মানতে নারাজ পুরশুড়ার বিজেপি বিধায়ক বিমান ঘোষ। তিনি বলেন, ‘যে কোনও মৃত্যুই দুঃখের। তবে এই খুনের সঙ্গে বিজেপির যোগ নেই। বিজেপি কোনওদিনই হিংসার রাজনীতি সমর্থন করে না। একুশের ভোটের পর হাজার হাজার বিজেপি কর্মী ঘরছাড়া হয়েছে, মার খেয়েছে। তারপরেও বিজেপি শান্তি বজায় রেখেছে। আমি পুলিশকে বলব ঘটনার যথাযথ তদন্ত হোক।’

You might also like