Latest News

৬৫ ঘণ্টার লড়াই, হেরে গেল ছোট্ট তন্ময়, কুয়ো থেকে তার নিথর দেহ তুলে আনলেন উদ্ধারকারীরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছিলেন উদ্ধারকারীরা। সাহস ধরে রেখেছিল ৮ বছরের বাচ্চাটাও। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। অন্ধকার কুয়ো হিংস্র শ্বাপদের মতো থাবা বাড়িয়ে প্রাণ কেড়ে নিল ছোট্ট তন্ময়ের। ৬৫ ঘণ্টার লড়াই শেষে উদ্ধারকারীরা যখন তন্ময়ের কাছে পৌঁছলেন, ততক্ষণে তার প্রাণ বেরিয়ে গেছে। কুয়ো থেকে শিশুর নিথর দেহই তুলে আনতে হল উদ্ধারকারীদের।

মধ্য়প্রদেশের বেতুল জেলার মাণ্ডবী গ্রামের বাসিন্দা ৮ বছরের তন্ময় সাহু খেলতে গিয়ে ৪০০ ফুট গভীর কুয়োয় পড়ে গিয়েছিল। তার বাবা সুনীল সাহু জানিয়েছেন, খবর পেয়েই ওই কুয়োয় ছুটে যান তাঁরা। ছেলের গলার আওয়াজও পান কুয়োর ভিতর থেকে। তার পরেই খবর দেওয়া হয় পুলিশে। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। উদ্ধারকারীরা জানান, কুয়োর ৫৫-৬০ ফুট গভীরতায় আটকে রয়েছে শিশুটি। তবে কুয়ো থেকে তাকে সরাসরি তোলা যায়নি অনেক চেষ্টা করেও। তাই কুয়োর পাশ দিয়ে একটি সমান্তরাল সুড়ঙ্গ খুঁড়ে তলা দিয়ে কুয়োয় প্রবেশ করার চেষ্টা শুরু করেন উদ্ধারকারীরা।

যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয় উদ্ধারকাজ। এদিকে কুয়ো সংলগ্ন এলাকার মাটিও শক্ত, পাথুরে। তাই খননকার্যে সময়ও লাগে। রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও যোগ দেয় উদ্ধারকাজে। ঘটনাস্থলে থেকে সবরকমভাবে ,সহযোগিতা করতে থাকে পুলিশ, দমকল, হোমগার্ড। ৪৫ ফুট অবধি কুয়োর গভীরে নামার পরে পাশাপাশি সুড়ঙ্গ পথ ধরে এগোতে থাকেন উদ্ধারকারীরা। তাঁরা জানান, কুয়োর ভেতর থেকে বাচ্চাটির আর সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছিল না। তখন তাঁরা মনে করেছিলেন হয়ত ভয়ে অজ্ঞান হয়ে গেছে। আসলে তখন থেকেই ধীরে ধীরে নিস্তেজ হয়ে পড়ছিল শিশুটি। উদ্ধারকীরার যখন তার কাছে পৌঁছন, তখন আর তার দেহে প্রাণ ছিল না। কুয়োর অন্ধকারে একা ভয়ে ও আতঙ্কে লড়াই হেরে যায় ছোট্ট তন্ময়। ৬৫ ঘণ্টার লড়াই শেষে মৃত শিশুকেই তুলে আনতে হয় উদ্ধারকারীদের।

You might also like