Latest News

করোনা কেড়ে নিচ্ছে ডাক্তারদেরও, দেশে একদিনেই মৃত ৫০ চিকিৎসক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কার্যত সুনামির মতো আছড়ে পড়েছে ভারতে। রোজ লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। ভাইরাসের ছোবলে প্রাণও হারাচ্ছেন বহু মানুষ। হার মানছেন ডাক্তাররাও।

শুধু সাধারণ মানুষ নয়, ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এ পর্যন্ত প্রাণ কেড়েছে মোট ২৪৪ জন ডাক্তারের। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৫০ জন ডাক্তার। তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে ছোটো ছিলেন আনাস মুজাহিদ। বয়স মাত্র ২৬। দেহে কোভিডের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর মাত্র কয়েকটা ঘণ্টা সময় পেয়েছিলেন তিনি। তারপর সব শেষ।

দিল্লির গুরু তেজ বাহাদুর হাসপাতালে মুজাহিদের বাকি সহকর্মীরা এখনও এই মৃত্যুর যন্ত্রণা কাটিয়ে উঠতে পারেননি। ডঃ আমির সোহেল বলেছেন, “আমরা খুব হতচকিত। ওর জীবনে কখনও তেমন বড় কোনও রোগ হয়নি। করোনার উপসর্গও ছিল না। আমরা ভাবতেই পারছি না এটা কীভাবে হল।” হাসপাতালের বাকি ডাক্তারদের মতো মুজাহিদেরও ভ্যাকসিন নেওয়া হয়নি। অনেকেই করোনা থেকে সেরে উঠেছেন। আর অনেকে হার মেনেছেন লড়াইয়ে।

পরিসংখ্যান বলছে, দেশে গত বছর করোনার থাবায় প্রাণ হারিয়েছিলেন মোট ৭৩৬ জন ডাক্তার। আর এবছরের সঙ্গে মিলিয়ে মিশিয়ে সংখ্যাটা গিয়ে দাঁড়িয়েছে হাজারের কাছাকাছি।

ডাক্তারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুহার রয়েছে বিহারে। তারপরেই রয়েছে উত্তরপ্রদেশ আর দিল্লি। মৃত ডাক্তারদের মধ্যে ভ্যাকসিন পেয়েছিলেন মাত্র ৩ শতাংশ।

সেই জানুয়ারি থেকেই ভারতে করোনার বিরুদ্ধে টিকাকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু এই ৫ মাসে গোটা দেশের স্বাস্থ্য কর্মীদের মধ্যে মাত্র ৬৬ শতাংশ সম্পূর্ণ ভ্যাকসিন পেয়েছেন। বাকি রয়ে গেছেন আরও ৩৪ শতাংশ।

হাসপাতাল গুলিতে দিনরাত এক করে অতিমারীর মোকাবিলা করছেন ডাক্তার নার্সরা। কখনও কখনও একটানা ৪৮ ঘণ্টাও কাজ করতে হচ্ছে তাঁদের। কাজের চাপে শিকেয় উঠেছে নাওয়া-খাওয়া। তার উপর রক্ষা নেই ভাইরাসের হাত থেকেও। সবমিলিয়ে দেশে ডাক্তার নার্স স্বাস্থ্য কর্মীদের মতো প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের অবস্থাটা মোটেই সুবিধার নয়।

You might also like