Latest News

ঝাড়খণ্ডে সাংবাদিককে অপহরণ করে খুন, সন্দেহের তালিকায় নিষিদ্ধ টিপিসি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নিখোঁজের একদিনের মাথায় উদ্ধার সাংবাদিকের ক্ষত-বিক্ষত দেহ। মঙ্গলবার ঝাড়খণ্ডের ছাতারা জেলার একটি জঙ্গল থেকে সাংবাদিকের দেহ উদ্ধার হয়। চন্দন তিওয়ারি (৩২) হিন্দি দৈনিক “আজ”-এর সাংবাদিক ছিলেন। অপহরণ করে খুন করা হয়েছে চন্দনকে বলে দাবি পুলিশের।

পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার রাত ৮টা নাগাদ বাড়ির সামনেই তিওয়ারিকে শেষ দেখা যায়।সেখান থেকেই দুষ্কৃতীরা চন্দনকে অপহরণ করে। ছাতারা জেলার দাম্বি গ্রামে নিহত সাংবাদিকের বাড়ি। গ্রামের পাশেই বিরাট জঙ্গল। রাচি থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরে এই গ্রাম। মঙ্গলবার বালথেরওয়া গ্রামের কাছাকাছি জঙ্গল থেকে চন্দন তিওয়ারির দেহ উদ্ধার করা হয়।

ত্রালে ছ’ঘণ্টার রুদ্ধশ্বাস লড়াই, খতম জইশ প্রধানের ভাইপো

দেহ উদ্ধারের পর সাংবাদিককে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করা হয়।এখনও দুষ্কৃতীরা কোন দলের বা কোনও গোষ্ঠীর কি না, তা জানা যায়নি। তবে ঝাড়খণ্ডে নিষিদ্ধ ” ত্রুতিয়া প্রস্তুতি কমিউনিটি- বা টিপিসি “গোষ্ঠীকেই সন্দেহ করছে পুলিশ। তিওয়ারির পরিবারও টিপিসির বিরুদ্ধেই অভিযোগ তুলছে।

সাংবাদিক হত্যার ঘটনায় বিশেষ তদন্ত কমিটি তৈরি হবে বলে জানিয়েছে ঝাড়খণ্ড পুলিশ। ২০১৬ সালেও টিপিসি গোষ্ঠী সাংবাদিক অখিলেশ প্রতাপ সিংকে গুলি করে খুন করে।ঝাড়খণ্ডে  মাওবাদীদেরই একটি শাখা ত্রুতিয়া গোষ্ঠী। জানা যায়, একসময়ে অ্খিলেশ নিজে মাওবাদী ছিলেন। পরে সমাজের মূল স্রোতে ফিরে এসে তাজা টিভির হয়ে সাংবাদিকতা করতেন। অখিলেশকে খুব কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করে টিপিসি-র এক সদস্য।

২ বছর পর আবার একই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি বলে মনে করা হচ্ছে। বরাবরাই সাংবাদিকদেরই নিশানা করে আসা টিপিসি গোষ্ঠী ছাতারা জেলার আতঙ্ক বলে জানাচ্ছে নিহত তিওয়ারির পরিবার।

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

 

You might also like