Latest News

এবার ভারতে দেওয়া হবে জাইদাস ক্যাডিলার ভ্যাকসিনের তিনটি ডোজও

দ্য ওয়াল ব্যুরো : দেশের জনসংখ্যার ৬৯ শতাংশ কোভিড ভ্যাকসিনের (Covid Vaccine) অন্তত একটি ডোজ পেয়েছেন। দু’টি ডোজ পেয়েছেন ২৫ শতাংশ। বৃহস্পতিবার এখবর জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। একইসঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব জানিয়েছেন, এবার থেকে জাইদাস ক্যাডিলার তিনটি ডোজও আমাদের দেশে দেওয়া হবে। ওই ডোজ ইনজেকশনের মাধ্যমে দেওয়া হয় না। তার দামও কোভিশিল্ড ও কোভ্যাকসিনের থেকে আলাদা হবে।

সরকার জানিয়েছে, আমাদের দেশের বহু অঞ্চলে জনবসতির ঘনত্ব অত্যাধিক। ওই এলাকাগুলিতে কোভিড সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া সহজ। তাই আসন্ন উৎসবের দিনগুলিতে সকলে যেন সতর্ক থাকেন।

একইসঙ্গে সরকার জানায়, গত সপ্তাহে দেশে যতজন কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের ৫৯.৬৬ শতাংশ কেরলের বাসিন্দা। ওই রাজ্যে এখন অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা ১ লক্ষের বেশি। একটি মহল থেকে অভিযোগ উঠেছিল, বর্তমানে কোভিড টেস্টের সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। সরকার ওই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে জানায়, দৈনিক ১৫ থেকে ১৬ লক্ষ মানুষের টেস্ট করা হচ্ছে। দেশের ১৮ টি জেলায় কোভিড পজিটিভিটি রেট পাঁচ থেকে ১০ শতাংশের মধ্যে। ৩০ টি জেলায় পজিটিভিটি রেট ১০ শতাংশের বেশি।

এরই মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন কোভ্যাকসিন নিয়ে টানাপড়েন চলছে। ভ্যাকসিন পাসপোর্টে ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভ্যাকসিনকে ছাড়পত্র দেওয়া হবে কিনা সে নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নিশ্চিত করে কিছু জানায়নি এতদিন অবধি। কিছুদিন আগেও ভ্যাকসিন নিয়ে সেফটি ট্রায়ালের রিপোর্ট সহ নানা নথিপত্র জমা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল ভারত বায়োটেককে। তাতেই মনে হয়েছিল বিদেশযাত্রায় এখনই কোভ্যাকসিনে অনুমতি নাও মিলতে পারে। তবে সম্প্রতি হু-র তরফে জানানো হয়েছে, সমস্ত রিপোর্ট খতিয়ে দেখে আগামী অক্টোবরের মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বাছাই করা ভ্যাকসিন তালিকায় নাম উঠতে পারে কোভ্যাকসিনের।

ন্যাশনাল কমিটি অন ভ্যাকসিন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের চেয়ারম্যান ডা. ভি কে পল বলেছেন, হু-র ভ্যাকসিন তালিকায় কোভ্যাকসিনের নাম উঠলেই বিদেশযাত্রায় আর কোনও সমস্যা থাকবে না। পাশাপাশি, বিদেশে কোভ্যাকসিন রফতানিও করতে পারবে ভারত বায়োটেক।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার থেকে জরুরি ভিত্তিতে আবেদনের জন্য দীর্ঘদিন ধরেই চেষ্টা চালাচ্ছে ভারত বায়োটেক। গত জুলাই মাসের গোড়ার দিকে হু-র শীর্ষ বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন জানিয়েছিলেন, চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে অনুমোদন পেতে পারে কোভ্যাকসিন। তিনি বলেছিলেন, অনুমোদন পাওয়ার জন্য কিছু নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হয় ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থাকে। সুরক্ষাজনিত তথ্য, সম্পূর্ণ ট্রায়ালের তথ্য পেশ করতে হয় , এমনকি অনুমোদন পাওয়ার জন্য উৎপাদনের গুণমান সংক্রান্ত তথ্যও দিতে হয়। ভারত বায়োটেক জানিয়েছিল, তারা ক্লিনিকাল ট্রায়ালের যাবতীয় তথ্য পেশ করেছে। হু জানিয়েছে, ভারত বায়োটেকের পেশ করা সমস্ত তথ্য খতিয়ে দেখে খুব তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সম্ভবত এ মাস শেষের আগেই কোভ্যাকসিনে ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

You might also like