Latest News

এবার গুজরাতে বিষমদ আতঙ্ক! মৃত অন্তত ২৮, আশঙ্কাজনক আরও অনেকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিষমদ কাণ্ডে (Spurious Liquor) এবার উত্তাল হল গুজরাত। বাংলার পর গুজরাতে (Gujarat) বিষমদ খেয়ে মৃত্যুর ঘটনায় তোলপাড় রাজনীতি। এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি আরও অনেকে। তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগের অবস্থাই অত্যন্ত আশঙ্কাজনক। ফলে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বর্তমানে স্যার টি হসপিটাল ভাবনগর ও আহমেদাবাদ সিভিল হসপিটালে চিকিৎসা চলছে অসুস্থদের। পুলিশ সূত্রে খবর, বিষমদ খেয়ে ৬০ জনের মতো অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁদের সকলকেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

মৃতদের পরিবারের তরফে বিষমদকেই দায়ী করা হয়েছে। জানা গেছে যাঁদের মৃত্যু হয়েছে তাঁদের অধিকাংশই আহমেদাবাদ ও বোটাডের জেলার বাসিন্দা। এই ঘটনায় পুলিশ খুনের মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত বেআইনি মদ বিক্রির অপরাধে বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রামের অন্দরেই মদ তৈরি ও বিক্রি হতো। ঘটনার তদন্তের জন্য রাজ্য সরকারের তরফে সিট গঠন করা হয়েছে। দ্রুত ঘটনার তদন্ত করে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তলব করেছে রাজ্য সরকার।

এমনিতেই গুজরাতে মদ তৈরি ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। সেই নিষেধ অমান্য করে চলছিল এই ব্যবসা। রাজ্যের ডিজিপি আশিস ভাটিয়া জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গুজরাতে বিষমদ কাণ্ড নতুন নয়। চলতি বছরের মার্চ মাসেই এমন ঘটনা সামনে এসেছিল। গুজরাতের রোজভিড গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। তাতে ছয় জনের মৃত্যু ঘটে। এখন প্রশ্ন উঠছে, তারপরেও কীভাবে রমরমিয়ে চলছিল এই বেআইনি মদের ব্যবসা?

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিরধীদের আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে রাজ্যের বিজেপি সরকারকে। কংগ্রেস থেকে আপ, সব বিরোধী দলই এই ঘটনার জন্য সরকারকে কাঠগড়ায় তুলছে।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই বাংলায় বর্ধমান ও হাওড়ায় বিষমদ কাণ্ড নিয়ে তোলপাড় হয়েছিল। দুই ঘটনা মিলে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছিল। যা নিয়ে বিরোধীরা সরব হয়েছিল। যদিও সেইসব ছাপিয়ে গেল গুজরাতের এই ঘটনা।

তৃণমূলের চার রাজ্যসভার সাংসদ সাসপেন্ড, উত্তাল সংসদ

You might also like