Latest News

শ-খানেক দেহ পোঁতা রয়েছে মাটির তলায়! অভিযোগ পেয়েই খোঁড়া হল বাড়ির উঠোন, তারপর…

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাড়ির নিচে নাকি পোঁতা রয়েছে ১০০টি মৃতদেহ (100 bodies buried)! পুলিশকে ফোন করে সেই খবর দিয়েছিলেন কানাডা নিবাসী এক ভারতীয় মহিলা। তারপরেই গ্রামে যখন একের পর এক পুলিশ আধিকারিক, মানবাধিকার কমিশন, ডগ স্কোয়াড এবং ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের গাড়ি ঢুকছিল, তখন হতভম্ব হয়ে গিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের ছোট্ট গ্রাম রাস্তারের বাসিন্দারা। তাঁদের অবাক করেই গাড়িগুলি গিয়ে দাঁড়াল অনু সিং নামে এক মহিলার বাড়িতে। তারপরেই কোনওরকম আগাম নোটিশ কিংবা অনুমতি ছাড়াই অনুর বাড়ির উঠোনে খোঁড়াখুঁড়ি করতে শুরু করলেন তাঁরা।

উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) বালিয়া জেলার রাস্তার গ্রামের বাসিন্দা অনু সিং। শালিনী নামে তাঁরই এক দূর সম্পর্কের আত্মীয়া পুলিশকে জানান, বাড়ির আসল মালিক তাঁর দাদু প্রয়াত ধর্মাত্মা সিং। তিনি দাবি করেন, ১৯৯০ থেকে ১৯৯৫ সালের মধ্যে ওই বাড়ির উঠোনে অন্তত ১০০টি মৃতদেহ পুঁতে ফেলা হয়েছে। তার উপর গাছও বসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এরপরেই শালিনীকে সঙ্গে করে বিশাল বাহিনী নিয়ে অনুর বাড়িতে এসে হাজির হল পুলিশ আধিকারিকরা। কিন্তু সারাদিনব্যাপী তল্লাশি চালিয়েও শালিনীর অভিযোগে স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ পাননি তাঁরা।

কোনও অনুমতি ছাড়াই এভাবে বাড়িতে তল্লাশি চালানোয় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ বাড়ির মালিক অনু সিং। তিনি জানিয়েছেন, শালিনী নামে ওই মহিলা, যিনি নিজেকে তাঁর সৎবোনের মেয়ে বলে দাবি করছেন, তিনি অনুর কেউই হন না। তিনি আরও জানিয়েছেন, শালিনী নাকি পুরো সময়টাই নিজের মুখ ঢেকে রেখেছিলেন। বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কিছুতেই নিজের মুখ দেখাননি তিনি। শুধুমাত্র একজনের মৌখিক অভিযোগে ভিত্তিতে কীভাবে এমন বেআইনি কাজ করা হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনু।

বটানিক্যাল থেকে দুষ্প্রাপ্য মেহগনি-চন্দন গাছ চুরি, জনস্বার্থ মামলা দায়ের হাইকোর্টে

You might also like