Latest News

বকেয়া না পেয়ে গাড়ি চালানো বন্ধ করলেন অ্যাম্বুল্যান্স চালকরা, সমস্যা চরমে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদহ : প্রত্যন্ত গ্রামের প্রসূতি মহিলাদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী শুরু করেছিলেন মাতৃযান প্রকল্প। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বকেয়া টাকা না পাওয়ায় এই প্রকল্পের অধীনে থাকা চালকেরা  মঙ্গলবার থেকে গাড়ি চালানো বন্ধ করে দিয়েছেন। ফলে বিপাকে পড়ে গেছেন এলাকার মানুষ।

হরিশ্চন্দ্রপুরের ধানগড়া এলাকার বাসিন্দা বাদেনুর বেওয়া বলেন, “ছেলের বউয়ের প্রসবযন্ত্রণা ওঠার পর স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীকে জানাই। কিন্তু তিনি জানিয়ে দেন মাতৃযান পাওয়া যাবে না। গাড়ি ভাড়া করার টাকা আমাদের নেই। তাই অন্যের কাছ থেকে টাকা ধার নিয়ে গাড়ি ভাড়া করে তবে হাসপাতালে এসেছি।”

মালদহের গ্রামীণ হাসপাতাল থেকে সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল, এমনকি মালদহ মেডিক্যাল কলেজের অধীনে রয়েছে প্রায় দুশো মাতৃযান। মঙ্গলবার থেকে মাতৃযান চালকরা কর্মবিরতির ডাক দেন। তাঁদের অভিযোগ, দীর্ঘ প্রায় দশ মাস ধরে বকেয়া রয়েছে তাঁদের প্রাপ্য। বারবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়ে এমনকি স্বাস্থ্য বিভাগে জানিয়েও কোনও ফল না হওয়ায় আন্দোলনের ডাক দেন তাঁরা। তাঁদের দাবি, স্বাস্থ্য বিভাগের তরফে তাঁদের বকেয়া টাকা না দেওয়া হলে এই কর্মবিরতি চলবে।

মালদা জেলায় শুধু ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রেই নয়,  এমন অবস্থা জেলার প্রতিটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র এমনকি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেও। কোথাও দশ মাস কোথাও বা চার পাঁচ মাস ধরে অ্যাম্বুল্যান্স চালকরা তাঁদের বকেয়া টাকা পাচ্ছেন না। এমন অবস্থায় অ্যাম্বুল্যান্স চালকদের কর্মবিরতির জেরে রীতিমতো নাজেহাল হতে হচ্ছে প্রসূতি মা ও তাঁদের স্বজনরা।

জেলার এক স্বাস্থ্য আধিকারিক জানান, বিষয়টি খুবই জটিল। এটা শুধু মালদহে নয়, সমস্ত জেলাতেই একই অবস্থা। সেখানেও ক্ষোভের বিস্ফোরণ ঘটল বলে।

You might also like