বুধবার, অক্টোবর ১৬

টমের মতোই কৌতূহল, সুইচ বোর্ডে মাথা ঢুকিয়ে শক খেয়ে লোম খাড়া

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কার্টুনের টমের সঙ্গে এ বেড়ালের চরিত্রগত মিল অনেক। তবে টেলিভিশনে নয়, এ বেড়াল দেখা দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কিন্তু কীর্তিকলাপে বুঝিয়ে দিয়েছে টমের থেকে এ-ও কোনও অংশে কম যায় না। 

অতিরিক্ত কৌতূহল দেখাতে গিয়ে টম যে বারবার বেজায় বিপদে পড়েছে সে সব টেলিভিশনে বহুবার দেখেছেন সকলেই। তবে এ বার সুইচবোর্ডে উঁকি মারতে গিয়ে মহা ফ্যাসাদে পড়েছিল এক কালো-সাদা বেড়াল। কারেন্টের শক খেয়ে প্রাণও যেতে পারত তার। তবে কপাল ভালো যে এ যাত্রায় বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটেনি। খালি বেড়ালবাবাজির চেহারাটা খানিক বদলে গিয়েছে।

গায়ের রঙ ছাড়া পর্দার টমের সঙ্গেই এই বেড়ালের বিশেষ পার্থক্য নেই। বরং হাবেভাবে একদম টমের একদম কার্বন কপি। সবসময় কৌতূহলী। টুইটারে ভাইরাল হয়েছে এই বেড়ালের ছবি। দেখা গিয়েছে খোলা সুইচবোর্ডে মুখ ঢুকিয়ে দেখতে গিয়েছিল সে। অনুমান, যে বাড়ির সে পোষ্য, সেখানেই চলছিল ইলেকট্রিকের কাজ। ক্ষণিকের জন্য খোলা সুইচবোর্ড রেখে অন্যদিকে গিয়েছিলেন ইলেকট্রিশিয়ান। ব্যাস তখনই নিজের কৌতূহল মেটাতে ছুটে গিয়েছিল বেড়ালটা।

সটান সুইচ বোর্ডে মাথা ঢুকিয়ে দেখতে গিয়েছিল ভিতরে কী আছে। সঙ্গে সঙ্গেই কারেন্টের শক লাগে তার। ঝট করে মাথা বের করে আনে বেড়ালবাবাজি। কিন্তু ততক্ষণে বদলে গিয়েছে তার চেহারা। গোঁফ থেকে লোম সবই যেন সজারুর মতো, খাড়া খাড়া। চোখে একরাশ বিস্ময়। কান দু’টো সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। ঘোর কাটিয়ে উঠতে পারেনি বেড়ালটা। ঠিক বুঝতেই পারছে না কী হয়েছে তার।

এ দিকে বেড়ালের এমন খাড়া গোঁফ আর লোমওয়ালা মুখের আদল দেখে হেসে গড়াচ্ছে নেট দুনিয়া। কেউ কেউ বলছেন এ যে অবিকল টম। টিভি ছেড়ে বেরিয়ে এসেছে মনে হচ্ছে। এমন কাণ্ডকারখানা তো টম-ই করে। এ নিশ্চয় তার জুড়িদার।  অনেকেই আবার আইনস্টাইনের ঝাঁকড়া চুলের সঙ্গেও তুলনা করেছেন এই কালো-সাদা বেড়ালটির। তবে মায়া পড়ে গিয়েছে নেটিজেনদের একাংশের। তাঁরা বলছেন, কারেন্টের শক লেগে বড়সড় বিপদ হতে পারত ওর। ও যে সুস্থ ভাবে বেঁচে রয়েছে এটাই বড় কথা।

Comments are closed.