শুক্রবার, এপ্রিল ২৬

আস্ত একটা মানুষ খেয়ে ফেলল শুয়োরের দল!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জলজ্যান্ত একটা মানুষকে খেয়ে ফেলল শুয়োরের দল। শুনে বিশ্বাস হচ্ছে না? খাবারের পাতে সুস্বাদু লোভনীয় পদ হিসেবে যারা হাজির থাকে, তারা এমনটা করতে পারে কিনা সেটাই ভাবছেন? শুনে চক্ষু ছানাবড়া হলেও বাস্তবে ঘটেছে এমন ঘটনাই। শুয়োরের দল খেয়ে ফেলেছে একটা আস্ত মানুষ। ফেলে রেখেছে দেহের সামান্য অংশ।

গত ৩১ জানুয়ারি রাতে খামার বাড়িতে পোষ্য শুয়োরদের খাবার দিতে গিয়েছিলেন এক মহিলা। কিন্তু আচামকাই মৃগী রোগে আক্রান্ত হন তিনি। ক্ষণিকের জন্য চলে যান কোমায়। আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে যান মাটিতে। আর তারপরেই ঘটে এই ভয়ঙ্কর কাণ্ড। নিজেদের খাবার ভেবে ওই মহিলাকেই গোগ্রাসে গিলতে শুরু করে শুয়োরের দল।

প্রথমে মহিলার মাথায় কামড় বসায় তারা। কার্যত মুণ্ডু চিবিয়ে খাওয়ার পর বাদ দেয়নি মহিলার কান, নাক, হাত, গলা, ঘাড় বা শরীরের অন্যান্য অংশও। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে খামারের মধ্যেই মৃত্যু হয় মহিলার। এই মর্মান্তিক এবং বীভৎস ঘটনা ঘটেছে সুদূর রাশিয়াতে। জানা গিয়েছে, মহিলার স্বামী অসুস্থ। রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যাওয়ার অভ্যাস রয়েছে তাঁর। তাই সারারাত তিনি কিছুই টের পাননি। তবে সকালে উঠে স্ত্রীকে দেখতে না পেয়ে খুঁজতে শুরু করেন তিনি। শুয়োরের খামারে পৌঁছনোর পর দেখেন মাটিতে রক্তাক্ত অবস্থায় লুটোচ্ছে তাঁর স্ত্রী’র ছিন্নভিন্ন দেহের অংশ।

বছর ৫৭-র ওই মহিলার আকস্মিক এবং ভয়াবহ মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন তাঁর স্বামী। হতবাক হয়ে গিয়েছেন প্রৌঢ় দম্পতির প্রতিবেশীরাও। ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থলে এসে নমুনা সংগ্রহও করে নিয়ে গিয়েছে ফরেন্সিক দল। আপাতত ফরেন্সিক রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছেন তদন্তকারী অফিসাররা। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে গিয়েছেন দুঁদে অফিসাররাও। তাঁরা জানিয়েছেন, এ ধরণের রহস্যজনক এবং বীভৎস ঘটনার কথা এর আগে শোনেননি।

Shares

Comments are closed.