রবিবার, মার্চ ২৪

বয়স বাড়লেই কেন পরিবর্তন আসে স্তনের গঠনে? বিশ্বের প্রথম থ্রিডি গবেষণা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মহিলাদের শারীরিক গঠনের বিভিন্ন ধরনের পরিবর্তন হয়। তার মধ্যে অন্যতম হলো স্তনের গঠন পরিবর্তন হওয়া। শরীরের আর পাঁচটা অংশের মতো খুব স্বাভাবিক ভাবেই স্তনের আকারও বৃদ্ধি পায়। কিন্তু, এই বৃদ্ধি সবার ক্ষেত্রে সমান নয়। অনেকের ক্ষেত্রে পরিবর্তন সেভাবে বোঝা যায় না। তবে অনেকের ক্ষেত্রেই ফারাকটা রীতিমতো চোখে পড়ে। কিন্তু কেন?

এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর সে ভাবে জানা নেই কারোও। তবে খুব জলদিই মিলতে চলেছে উত্তর। ইউনাইটেড কিংডমের পোর্টসমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দু’দিন ধরে একটি পরীক্ষা করতে চলেছেন। এই পরীক্ষা থেকে মহিলাদের স্তনের গঠন পরিবর্তন সংক্রান্ত অনেক তথ্য পাওয়া যাবে বলেই মনে করছেন গবেষকরা।

গবেষকরা জানিয়েছেন, এই পরীক্ষা চলাকালীন মহিলাদের একটি ট্রেডমিলে হাঁটতে হবে। আর এই হাঁটার সময়ই থ্রি ডাইমেনশনাল পরীক্ষার সাহায্যে বোঝা যাবে কী কারণে স্তনের আকার পরিবর্তন হয়। এমনকী আগের তুলনায় স্তনের গঠনে কতটা পরিবর্তন হয়েছে সেটাও নাকি জানা সম্ভব হবে। এমনটাই জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

প্রতিদিনের অভ্যাস এক গ্লাস ওয়াইন! বিপদ ডেকে আনছেন না তো?

ডাক্তার টিম ব্ল্যাকমোরের বক্তব্য, “এই ধরনের গবেষণা সম্ভবত সমগ্র বিশ্বে এই প্রথম। সাধারণত বয়স বাড়লে মহিলাদের স্তনের মধ্যে থাকা ফ্লুইডের ঘনত্ব বাড়ে। এই ঘনত্বই স্তনের আকার পরিবর্তনের কারণ কিনা তাও জানা যাবে এই গবেষণায়।”

গবেষণার সময় মেয়েদের ট্রেডমিলে হাঁটতে বলার আরও একটা কারণ রয়েছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। তাঁদের বক্তব্য, এই হাঁটার সময় মেয়েদের স্তন কতটা নড়াচড়া করে, কিংবা এই নড়াচড়ার ফলে স্তনের আকারের কোনও পরিবর্তন হয় কিনা, সেটা জানাই লক্ষ্য। এই আকার পরিবর্তনের উপর স্তনের মধ্যেকার ফ্যাট কিংবা গ্র্যান্ডুলার টিস্যু’র কোনও প্রভাব আছে কিনা সেটাও জানা যাবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। এই গবেষণায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রতিটি মেয়েকে ৩০ পাউন্ড করেও দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

দু’দিন ব্যাপী এই গবেষণায় সাহায্য করবে ‘রিসার্চ গ্রুপ ইন ব্রেস্ট হেলথ’ নামের একটি সংস্থা। এই সংস্থাটি এক দশক ধরে মেয়েদের স্তন সংক্রান্ত গবেষণার ক্ষেত্রে সবথেকে ভালো কাজ করছে। জানা গিয়েছে, চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসেই পোর্টসমাউথের সেন্ট মেরি’র এনএইচএস ট্রিটমেন্ট সেন্টারে হবে এই পরীক্ষা। সেন্টারের ডিরেক্টর পেনি ড্যানিয়েলস মনে করেন, এই পরীক্ষাটি খুব কার্যকরী হবে। আর তাই এতে অংশ নেওয়ার জন্য অনেক মহিলাকেই আহ্বান জানানো হয়েছে।

The Wall-এর ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন 

Shares

Comments are closed.