সোমবার, অক্টোবর ২২

ইতিহাস গড়বে বিজ্ঞান, কাল সূর্য ছোঁয়ার অভিযান

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কাউন্ট ডাউন শুরু। এক ঐতিহাসিক মিশন হাজির হয়েছে তার চূড়ান্ত পর্বে। নাসাতে এই মুহূর্তে চলছে তার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

বিজ্ঞানের এক যুগান্তকারী অভিযান হতে চলেছে আগামী কাল (শনিবার, ১১ অগস্ট)। সূর্যকে প্রায় ছুঁতে চলেছে নাসার মহাকাশযান ‘পার্কার সোলার প্রোব’। নাসা মিশনটির নাম দিয়েছে ‘টাচ দ্য সান’। ৯১ বছর বয়সী জ্যোতির্বিজ্ঞানী ইউজিন পার্কারের নামে এই মহাকাশযানটির নামকরণ করা হয়েছে। এ মিশনে নাসার খরচ হচ্ছে প্রায় ১৫০ কোটি ডলার ।

জ্যোতির্বিজ্ঞানী ইউজিন পার্কারের নামেই মহাকাশযানটির নাম দেওয়া হয়েছে

এটিই হবে মানুষের পাঠানো প্রথম কোনও মহাকাশযান, যা সূর্যের সবচেয়ে কাছাকাছি পৌঁছবে। এবং এটিই হবে মানব ইতিহাসের এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে দ্রুতগামী যান। মহাকাশে যার সর্বোচ্চ গতি হবে ঘণ্টায় সাড়ে ৪ লক্ষ ৩০ হাজার মাইল। এটি সূর্যের করোনা অঞ্চলে প্রবেশ করবে। সূর্যের ৩৮ লক্ষ ৩০ হাজার মাইল দূর থেকে ‘পার্কার সোলার প্রোব’টি সূর্যের করোনা অঞ্চলের ছবি ও অনান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাঠাবে। সূর্যের করোনা অঞ্চল নিয়ে গবেষণাই এই উৎক্ষেপণের মূল উদ্দেশ্য।

নাসার সৌরবিজ্ঞানী অ্যালেক্স ইয়ং জানিয়েছেন, ‘পৃথিবীর আবহাওয়ার নিখুঁত ধারণা পেতে করোনা সম্পর্কে জানা আমাদের কাছে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়, গুরুত্বপূর্ণ ও মৌলিক একটি বিষয়। কারণ করোনা আমাদের কাছে এখনও রহস্যময় ও অজানা বিষয়।

পার্কার সোলার প্রোব

প্রস্তুতি পর্বে পার্কার সোলার প্রোব (PSP)

সব ঠিক থাকলে, আগামী কাল, শনিবার ভোর ৩:৩৩ (EDT) মিনিটে মহাকাশযানটি অ্যালায়েন্স ডেল্টা-৪ হেভি রকেটে চড়ে, ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল  এয়ারফোর্স স্টেশন থেকে সূর্যের দিকে ছুটে যাবে।
‘পার্কার সোলার প্রোব’ মহাকাশযানটি প্রায় ২৫০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রা সহ্য করতে পারবে, কারণে যানটিতে সাড়ে চার ইঞ্চির তাপ নিরোধক কার্বন মিশ্রিত আবরণ আছে। প্রোবের ভেতরের তাপমাত্রা থাকবে মাত্র ৮৫ ডিগ্রি ফারেনহাইট।
আগামী সাত বছরের ‘টাচ দ্য সান’ মিশনে প্রোবটি চব্বিশ বার সূর্যের করোনা অঞ্চল প্রদক্ষিণ করবে।

 

ডেল্টা-৪ রকেটের সাহায্যে মহাকাশে যাবে PSP

এ বছরের ২৪শে নভেম্বর ‘পার্কার সোলার প্রোব’ সূর্যের সবচেয়ে দূরবর্তী কক্ষপথে পৌঁছাবে। যেটির দূরত্ব সূর্য থেকে ১ কোটি ৫৪ লক্ষ মাইল। এবং এই ভাবে ২১টি কক্ষপথ প্রদক্ষিণ করে ২০২৪ সালে সূর্যের নিকটতম কক্ষপথে পৌঁছবে। যার দূরত্ব সূর্য থেকে মাত্র ৩৮ লক্ষ মাইল। শুনতে অনেক মনে হলেও মহাকাশ গবেষণায় এটি কোনও বড় দূরত্বই নয়। বরং সূর্যের এত কাছাকাছি কোনও মহাকাশযান এর আগে পৌঁছয়নি। সারা পৃথিবীর চোখ এখন তাই ফ্লোরিডার স্পেস লঞ্চ কমপ্লেক্স-৩৭-এর দিকে। কারণ, ইতিহাস গড়তে চলেছে বিজ্ঞান, নাসার হাত ধরে।

 

Shares

Leave A Reply