মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

তিন বোতল মধুর মাশুল তিন মাসের জেল!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মধু খেতে বড় ভালোবাসতেন বছর ৪৫-এর লিওন হাউটন। আদতে আমেরিকার মেরিল্যান্ডের বাসিন্দা। প্রতিবছরই জামাইকা যান মায়ের সঙ্গে দেখা করতে। আর সেখানে থেকেই বাড়িতে নিয়ে আসেন সাধে মধু। গত ১০ বছর ধরে এমনটাই অভ্যাস তাঁর। কিন্তু মধু প্রেমের জেরেই এ বার জেলের ঘানি টানতে হয়েছে হাউটনকে। তাও টানা তিন মাস। অবশেষে ছাড়া পেয়েছেন বটে। তবে হারিয়েছেন সম্মান, চাকরি, সমাজে প্রতিষ্ঠিত জায়গা সবই।

গত বছর ২৯ ডিসেম্বর বাল্টিমোর-ওয়াশিংটন ইন্টারন্যাশনাল থুরগুড মার্শাল এয়ারপোর্টে ধরা পড়েন হাউটন। ওই দিন জামাইকা থেকে আমেরিকার মেরিল্যান্ডে নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন লিওন হউটন। সেই সময় তিন বোতল মধু সমেত হাউটনকে পাকড়াও করে পুলিশ। মধুর বোতলগুলোকে মাদক তরল মেটামফেটামাইন ভেবে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রসঙ্গত, এই মেটামফেটামাইন নিষিদ্ধ ড্রাগ। হাউটনের কোনও কথা না শুনেই গারদে পুরে দেওয়া হয় তাঁকে। এরপর পরীক্ষা নীরিক্ষা করে দেখা যায় সেদিন হাউটনের কাছে সত্যিই ড্রাগের বদলে ছিল মধু। কিন্তু ততদিনে পার হয়ে গিয়েছে তিন তিনটে মাস।

ছাড়া পাওয়ার পর প্রশাসনের উপর ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন হাউটন। তিনি বলেছেন, “এক লহমায় ওরা আমার জীবন তছনছ করে দিয়েছে। আমি ভাগ্যবান কারণ আমার পরিবারের সকলের মনের জোর অত্যন্ত বেশি। নইলে এতদিনে সবাই আমায় ছেড়ে চলে যেতেন।” তবে আপাতত নতুন করে বাঁচার রসদ খুঁজছেন হাউটন। চাকরি খুইয়েছেন বহুদিন আগেই। তবে ভেঙে পড়েননি হাউটন। বরং বলছেন, “স্ত্রী-সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে নতুন করে বাঁচার লড়াই লড়ছি।”

Comments are closed.