মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭

পরমাণু অস্ত্র দিয়ে সাফ করে দেব ভারতকে, মিয়াঁদাদের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড়

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সরফরাজ আহমেদ, শোয়েব আখতার, সৈয়দ আফ্রিদির পর এ বার জাভেদ মিয়াঁদাদ। জম্মু-কাশ্মীর থেকে বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা প্রত্যাহার নিয়ে এ বার ভারতের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার মিয়াঁদাদ।

এক পাক টিভি চ্যানেলকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময়ে তিনি ভারতের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, “আক্রমণ করলে আত্মরক্ষার অধিকার সবার আছে। যদি কেউ ভাবে আমরা পরমাণু অস্ত্র গুলো সাজানোর জন্য রেখেছি, তাহলে তারা ভুল ভাবছে। সময় এলে ওগুলো দিয়েই সাফ করে দেওয়া হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। সেই ভিডিয়োতে জাভেদ মিয়াঁদাদকে বলতে শোনা যাচ্ছে, “মোদী আসলে ভিতু লোক। তাই এ সব করেছে। পাকিস্তানের মানুষ কাশ্মীরের সঙ্গে আছে।” ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তৈরি হয়েছে পৃথক দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল। তার পর থেকেই পাকিস্তানের একের পর এক ক্রিকেট তারকা বেঁফাস মন্তব্য করে চলেছেন।

ওই সাক্ষাৎকারে মিয়াঁদাদ আরও বলেছেন, “প্রতিটি পাক নাগরিকের হাতে বন্দুক দেওয়া উচিত। যাতে তাঁরা হামলা ঠেকানোর জন্য প্রস্তুত থাকেন।”

৩৭০ ধারা বিলোপের পর আফ্রিদি টুইট করে লিখেছিলেন ‘এ সব দেখেও রাষ্ট্রপুঞ্জ কি ঘুমোচ্ছে?’ রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস আখতার কাশ্মীরের স্বাধীনতার পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। এ বার মিয়াঁদাদ। তবে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রাক্তন পাক ক্রিকেটারকে তুলোধনা করতে শুরু করেছে ভারতীয় নেটিজেনরা। অধিকাংশেরই বক্তব্য, লড়াই হলে আপনি তো পালিয়ে যাবেন। কেন তাহলে মিছিমিছি এ সব বলে বাজার গরম করছেন?

পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, ৩৭০ নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে নালিশ করতে আন্তর্জাতিক মহলের দোরে দোরে ঘুরেছে.পাকিস্তান। কিন্তু কেউ পাত্তা দেয়নি। রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদও কোনও প্রস্তাব নেয়নি। অধিকাংশ সদস্য দেশই বলেছে, এটা ভারতের একেবারেই অভ্যন্তরীণ বিষয়। এখানে ইসলামাবাদের কোনও ভূমিকাই নেই। তাই সবটা দেখে কিছুটা হতাশা থেকেই এ ধরনের কথা বলছেন মিয়াঁদাদ, আফ্রিদি, আখতাররা।

Comments are closed.