বুধবার, জুন ২৬

“পঞ্চাশ পেরোলেই মেয়েরা বুড়ি, তাদের প্রেমে আর পড়া যায় না”, বলে নিন্দার মুখে ফরাসি লেখক

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পঞ্চাশ বছর হয়ে গেলে মেয়েদের আর ভালোবাসা যায় না। তারা তখন খুবই বয়স্ক, বুড়ি।এমন মন্তব্য করে বিপাকে পড়েছেন ফ্রান্সের সুপরিচিত লেখক ইয়ান মোই। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দা আর সমালোচনার তোপের মুখে পড়েছেন তিনি। ইয়ানের নিজের বয়সও পঞ্চাশ। অথচ পঞ্চাশের মহিলাদের তাঁর কাছে মোটেই আকর্ষণীয় লাগে না।

মেরি ক্লেয়ার ম্যাগাজিনকে দেওয়া এক ইন্টারভিউয়ে ইয়ান বলেন, “আমি অল্পবয়সী মেয়েদের শরীর পছন্দ করি। ২৫ বছরের নারীশরীর অসাধারণ! কিন্তু ৫০ বছরের মহিলার শরীরের কোনও আকর্ষণ নেই।”  তাঁকে ব্যঙ্গ করে এক জন টুইটারে লিখেছেন ৫০ বছর বয়সী মহিলারা ইয়ানের কথায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন। ফরাসি কমেডিয়ান মারিনা ফোই বলেছেন, “আমার আর কদিন পরেই ৪৯ বছর হবে। তার মানে ইয়ানের শয্যাসঙ্গিনী হওয়ার জন্য আমার হাতে আর মাত্র এক বছর ১৪ দিন আছে!”

অনেক ৫০ বছর বয়সী মহিলারা আবার তাঁদের নিজেদের শরীরে সুন্দর ফটো দিয়ে প্রতিবাদ করেছেন। তাঁদের বক্তব্য, ৫০ হলেই সৌন্দর্য ফুরিয়ে যায় না।

হেল বেরি

জেনিফার অ্যানিস্টন

এক ফরাসি সাংবাদিক তাঁর নিতম্বের ফটো দিয়ে (পরে অবশ্য মুছে দিয়েছেন সেই ফটো) লিখেছেন, দ্যাখো ৫২ বছর বয়সে কী দারুণ শরীর!  ইয়ান, কী মিস্ করছ জানলে না কারণ তুমি এক নম্বরের বোকা। অনেকে হেল বেরি, জেনিফার অ্যানিস্টনের মতো  পঞ্চাশোর্ধ্ব হলিউড সেলিব্রিটিদের ফটো শেয়ার করে দেখিয়েছেন, পঞ্চাশ পার হয়ে গেলেও দারুণ সুন্দরী আর সেক্সি থাকা যায়।

রোমান্স মানেই যে শুধু শরীর নয় সে কথা বলেছেন আর এক ফরাসি কমেডিয়ান অ্যান রোমানফ। তিনি বলেন, “রোমান্স মানেই সুঠাম নিতম্ব নয়। রোমান্স মানে দুটো মানুষের মধ্যে নিবিড় আত্মিক সম্পর্ক। সেটাই আসল সুখ। আশা করি, একদিন ইয়ান সেটা বুঝবে।”

ইয়ান এক জন প্রেজেন্টার, পুরস্কারজয়ী লেখক ও পরিচালক। তিনি অনেক সময়েই বিতর্কিত মন্তব্য করে থাকেন। মেরি ক্লেয়ার ম্যাগাজিনকে তিনি খোলাখুলি জানিয়েছেন তাঁর সঙ্গিনী হিসেবে কাদের বেশি ভালো লাগে। চিনা, জাপানি ও কোরিয়ানদেরই তাঁর সবচেয়ে পছন্দ। তাঁর কথায়, আমার কাদের পছন্দ করি সেটা আমার ব্যাপার, তার জন্য আমাকে তো আদালতকে জবাবদিহি করতে হবে না।

 

Comments are closed.