শনিবার, মে ২৫

হাঁসের মাংসের রেসিপির সঙ্গে এল ডজনখানেক আরশোলা!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ডেলিভারি বয় কৌটো খুলে খাবার খেয়ে নিয়েছেন, নামী রেস্তোরাঁর খাবারে মিলেছে পোকার দেহাংশ, বার্গারের ভিতর পাওয়া গিয়েছে মাটির টুকরো, এমনকী নামজাদা ট্রেনের খাবারেও হদিশ মিলেছে আরশোলা কিংবা প্লাস্টিকের টুকরো বা অন্য কোনও পোকামাকড়ের——-এইসব ঘটনার সঙ্গেই এখন বিশ্ববাসী পরিচিত। কিন্তু তা বলে অর্ডার করা খাবারে ৪০টা আরশোলা!

যা শুনেই গা গুলিয়ে ওঠার জোগাড়, বাস্তবে সেটাই হয়েছে। বন্ধুদের সঙ্গে জমিয়ে ডিনার করবেন বলে আয়োজন করেছিলেন এক মহিলা। অ্যাপের মাধ্যমে অনলাইনেই অর্ডার করেছিলেন জিভে জল হানা হাঁসের মাংসের রেসিপি। কৌটো করে হাঁসের মাংসের নির্দিষ্ট রেসিপিই এসেছে। কিন্তু সঙ্গে ফ্রিতে আমদানি হয়েছে অন্তত ৪০টি আরশোলার দেহ। ঠিক এমনটাই দাবি করেছেন চিনের এক বাসিন্দা। আন্তর্জাতিক সংবাদসংস্থা ‘সান’-এর রিপোর্ট অনুযায়ী দক্ষিণ চিনের গুয়াংডং প্রদেশে শানতৌ শহরে ঘটেছে এমন ঘটনা।

অভিযোগকারিণী জানিয়েছেন, খেতে বসার পর তাঁর এক বন্ধুই নিজের পাতে প্রথম একটা আরশোলা আবিষ্কার করেন। এরপরেই সন্দেহ হওয়ায় কৌটোতে থাকা বাকি খাবার ভালো করে পরীক্ষা করতে বসেন সবাই। তারপরেই একে একে বেরিয়ে আসে কমপক্ষে ৪০টি আরশোলার দেহ।

এ দিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনার ছবি ভাইরাল হতেই শুরু হয়েছে নানান ঠাট্টা-তামাশা। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে খাবার থেকে আরশোলাগুলোকে তুলে টিস্যুপেপারের উপর সাজিয়ে রাখছেন ওই মহিলা এবং তাঁর বন্ধুরা। এই দেখে নেটিজেনদের কেউ কেউ বলছেন, চিনারা তো এমনিতেই এ সব পোকামাকড়ওয়ালা খাবার খেতে অভ্যস্ত। তাহলে অসুবিধা কোথায়? কেউ বা বলেছেন, ওদেশে বোধহয় হাঁসের মাংস রান্না করতে আরশোলা ফোড়ন হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তবে নেটিজেনরা যতই মশকরা করুন না কেন, ওই মহিলা এবং তাঁর বন্ধুরা কিন্তু এ হেন খাবার ডেলিভারি পেয়ে বেজায় চটেছেন। আর তাই সটান সংশ্লিষ্ট রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা। আপাতত বিষয়টি তদন্তের অধীনে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Shares

Comments are closed.