বুধবার, জুলাই ১৭

তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্র নয়াগ্রাম, বিধায়কের গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ, জখম দুই বিজেপি কর্মী

দ্য ওয়াল ব্যুরো, ঝাড়গ্রাম:  তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত নয়াগ্রামের বড়ডাঙ্গা এলাকা। তৃণমূল বিধায়কের গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে। অন্যদিকে, বিজেপির দাবি, তাদের কর্মী-সমর্থকদের বেধড়ক মারধর করেছে স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। ঘটনাস্থলে রয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী।

তৃণমূলের অভিযোগ, শনিবার শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিন পালনের পর বড়ডাঙ্গা গ্রামে নয়াগ্রাম ব্লক তৃণমূলের সভাপতি উজ্জ্বল দত্তের কাকা অমল দত্তের বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায় বিজেপির লোকজন। অমলবাবুকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এর পরে নয়াগ্রামের বিধায়ক দুলাল মূর্মূর গাড়ি ভাঙচুর করে বিজেপির সমর্থকরা। ঘটনার পর এ দিন বিকেলে প্রতিবাদ মিছিল করে তৃণমূল। যদিও তৃণমূলের সব অভিযোগই অস্বীকার করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

বিজেপির দাবি, বড়ডাঙ্গা গ্রামেরই দুই বিজেপি কর্মী সুকুমার সিং ও অঞ্জলি সিং-কে বেধড়ক মারধর করে তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। গুরুতর জখম অবস্থায় তাঁদের প্রথমে নয়াগ্রাম সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় সেখান থেকে ঝাড়গ্রাম জেলা হাসপাতালে তাঁদের স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

তৃণমূলের নয়াগ্রাম ব্লক সভাপতি উজ্জ্বল দত্ত বলেন,”বিজেপি পরিকল্পনা করে আমার কাকার বাড়িতে ঢুকে লুটপাঠ চালিয়েছে। পরে বিধায়কের গাড়িও ভাঙচুর করেছে। অভিযোগ জানানো হচ্ছে।” ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা উৎপল দাস মহাপাত্র বলেন, “তৃণমূল নেতার কাকা ও পরিবারই প্রথমে আমাদের কর্মী সুকুমার সিং-কে মারধর করে। তাঁকে ছাড়াতে গিয়ে জখম হন অঞ্জলি সিং নামে আর এক মহিলা কর্মী। পুলিশ উল্টে আমাদের দু’জন আটক করে নিয়ে গিয়েছে।”

Comments are closed.