বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮

বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে ঢুকে বেধড়ক মার, জখম মহিলা ও শিশুও, অভিযোগ ওড়াল তৃণমূল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃণমূলের মিছিলের পরেই বিজেপি কর্মীদের বাড়ি বাড়ি ঢুকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠল শাসক দলের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে। সিউড়ির কোমা গ্রাম পঞ্চায়েতের গাঙটে গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে বুধবার রাতে। বিজেপির দাবি, মহিলা ও শিশুদের গায়েও হাত তুলেছে তৃণমূল কর্মীরা। যদিও বিজেপির এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল  নেতৃত্ব।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গতকাল রাতে এলাকায় মিছিল বার করে তৃণমূল। প্রায ৪০০-৫০০ জন তৃণমূলের কর্মী-সমর্থক ওই মিছিলে যোগ দিয়েছিল। বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ, এই মিছিল চলে যাওয়ার পরেই তাঁদের বাড়িতে চড়াও হয় বেশ কিছু তৃণমূল কর্মী। বাড়ি ভাঙচুর করে তারা, সেই সঙ্গে চলে মারধর। কয়েকজন মহিলা ও শিশুও আহত হয়েছেন। বিজেপির দাবি, গোটা ঘটনা দেখেও নীরব ছিল পুলিশ।

প্রসঙ্গত দিন কয়েক আগেই কোমা গ্রাম পঞ্চায়েতের দখল নিয়েছিল বিজেপি। সিউড়ি ২ নম্বর ব্লকের সাত সদস্যের কোমা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও উপপ্রধান-সহ ৫ জন যোগ দেন বিজেপিতে। সোমবার সিউড়িতে নবনিযুক্ত জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল বিজেপির পতাকা তুলে দেন পঞ্চায়েত প্রধান ঝর্না বাগদি এবং উপপ্রধান সুমিত্রা টুডু-সহ অন্যান্য পঞ্চায়েত সদস্যদের হাতে। জেলা সভাপতি বলেন, “দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উন্নয়ন কর্মযজ্ঞে সামিল হতে গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যেরা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ওই গ্রাম পঞ্চায়েত এখন বিজেপির দখলে।”

গতকালের ঘটনার পরে বিজেপির দাবি, যেহেতু গ্রাম পঞ্চায়েতের দখল বিজেপি নিয়ে নিয়েছে, তার জন্যই এই হামলা। অন্যদিকে বিজেপির অভিযোগ উড়িয়ে তৃণমূলের দাবি, এমন কোনও ঘটনাই ঘটেনি। এলাকায় শান্তিপূর্ণ মিছিল হয়েছিল।

Comments are closed.