বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২

লরি উল্টে মৃত স্কুল ছাত্রী, রণক্ষেত্র পূর্ব বর্ধমান, স্থানীয়দের ক্ষোভের মুখে মহকুমাশাসক

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: ধান বোঝাই লরি উল্টে পাঁচ স্কুল পড়ুয়ার আহত হওয়ার ঘটনার পরই অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি তৈরি হয় সাতগেছিয়ার রাধাকান্তপুরে। গুরুতর জখম অবস্থায় ছাত্রছাত্রীদের ভর্তি করা হয় হাসপাতালে, তার মধ্যে বেলার দিকে মৃত্যু হয় এক ছাত্রীর।  এর পরেই রাস্তা আটকে বিক্ষোভ দেখান এলাকার বাসিন্দারা। অবরোধ তুলতে এলে পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ শুরু হয়। অভিযোগ, ঘটনাস্থলে পৌঁছে হেনস্থার শিকার হন বর্ধমান দক্ষিণ মহকুমাশাসক অনিবার্ণ কোলে। দীর্ঘ আট ঘণ্টা পর অবরোধ ওঠে।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনা ঘটে মঙ্গলবার সকাল ১০টা নাগাদ। প্রতিদিনের মতোই স্কুলে যাচ্ছিল পড়ুয়ারা। রাধাকান্তপুরের রাস্তায় উঠে আচমকাই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে উল্টো দিক থেকে আসা ধান বোঝাই একটি লরি। স্থানীয়দের দাবি, লরিটির বৈধ লাইসেন্স ছিল না। পুলিশের তাড়া খেয়ে গতি বাড়িয়ে পালাতে গিয়েই সেটি বেসামাল হয়ে উল্টে যায়। লরির নিচে চাপা পড়ে যায় পড়ুয়ারা। ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয়রাই। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় বাসন্তী হাজরা (১৪) নামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর। বাকিদের চিকিৎসা চলছে হাসপাতালে।

এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, বেপরোয়া গতির কারণে সড়কপথে প্রায়ই দুর্ঘটনা লেগে থাকে। গতি নিয়ন্ত্রণের কোনও চেষ্টাই হয় না। প্রশাসনও এ ব্যাপারে উদাসীন। স্কুল ছাত্রীর মৃত্যুর পরেই তাই দফায় দফায় বিক্ষোভ-অবরোধ শুরু করেন স্থানীয়রা। বিক্ষোভে যোগ দেয় স্কুল পড়ুয়ারাও। অবরোধ তুলতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছলে পরিস্থিতি আরও বিগড়ে যায়। পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয় অবরোধকারীদের। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট, পাথর ছোড়া হয়। পুলিশের ভ্যানে আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। পাল্টা লাঠি চালায় পুলিশও। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটানো হয়। অবরোধকারীদের দাবি, পুলিশের লাঠির ঘায়ে জখম হয়েছেন অনেকে।

পুলিশ জানিয়েছে, বর্ধমান দক্ষিণ মহকুমাশাসক অনিবার্ণ কোলেকেও আটকে রাখে অবরোধকারীরা। তাঁকে হেনস্থা করার অভিযোগে অবরোধকারীদের কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ।

 

Comments are closed.