মঙ্গলবার, মার্চ ১৯

গাছের ডাল ভেঙে রক্তাক্ত ছাত্রী, মাথায় ব্যান্ডেজ বেঁধেই দিল উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আজকের পরীক্ষার প্রস্তুতি দারুণ। শুধু প্রশ্নপত্র হাতে পাওয়ার অপেক্ষা। পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢোকার আগে সেটাই ভাবছিল সবনম। এ বছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিচ্ছে সে। হাসি মুখে স্কুলের ভিতর ঢুকে কয়েক পা যেতেই বিকট মড়মড় শব্দ। ভেঙে পড়েছে ইউক্যালিপটাস গাছের একটা মোটা ডাল। আর সেটাই পড়েছে সবনমের মাথায়। মাথা ধরে কিশোরী ততক্ষণে মাটিতে বসে পড়েছে। রক্তে ভিজে গেছে তাঁর স্কুল ইউনিফর্ম।

জলপাইগুড়ি রাষ্ট্রীয় বালিকা বিদ্যালয়ে বুধবার এমন দুর্ঘটনায় হই চই পড়ে যায় শিক্ষিকা ও স্কুল কর্তৃপক্ষের মধ্যে। সেন্ট্রাল গার্লস স্কুলের মেধাবী ছাত্রী সবনম সুলতানের পরীক্ষার সিট পড়েছিল রাষ্ট্রীয় বালিকা বিদ্যালয়ে।  স্কুল কর্তৃপক্ষের কথায়, সবনমকে তড়িঘড়ি একটি নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে ভর্তি করা একটি হাসপাতালে।

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা মাধবী তালুকদার জানিয়েছেন, মাথায় ব্যান্ডেজ বাঁধা অবস্থাতেই পরীক্ষা দিয়েছে সবনম। তাকে লেখার জন্য অতিরিক্ত এক ঘণ্টা সময়ও দেওয়া হয়। মাধবীদেবীর কথায়, সবনম খুবই সাহসী মেয়ে। যন্ত্রণা নিয়েও হাসি মুখে পরীক্ষা দিয়েছে সে। আর লেখা শেষে জানিয়েছে সে অন্তত ৯০ শতাংশ নম্বর পাবে।

‘‘মেয়ের আজ ভূগোল পরীক্ষা ছিল। ও স্কুলে যাওয়ার পরই শিক্ষিকাদের থেকে ফোনে দুর্ঘটনার কথা জানতে পারি। রক্তাক্ত অবস্থায় ওকে হাসপাতালে নিয়ে আসি। পরীক্ষকরা লেখার জন্য অতিরিক্ত সময়ও দিয়েছিলেন,’’ বলেছেন সবনমের বাবা আবু রাহান।

এত বড় বিপর্যয়ের পরেও সবনমের মনে কিন্তু ভয় বা টেনশনের লেশমাত্র নেই। পরীক্ষা ভালো দিয়ে সে এখন বন্ধুদের সঙ্গে আবীর খেলার প্ল্যান করছে। মুখে হাসি নিয়েই সে বলেছে, ‘‘গাছের ডাল পড়ে আমার মাথা থেকে গলগল করে রক্ত বেরোচ্ছিল। আমি চারদিকে অন্ধকার দেখছিলাম। আমাকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পর ডাক্তারবাবু মাথায় ব্যান্ডেজ করে দিলো। সিক বেডে বসে পরীক্ষা দিয়েছি। আশা করছি ৯০% নম্বর পাবো। ’’

 

Shares

Comments are closed.