‘মূল অভিঘাত কেটে গেছে, তবু অপ্রয়োজনে বেরোবেন না’, পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সাগরদ্বীপে তাণ্ডব চালাচ্ছে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। ঝড়ের দাপটে তছনছ সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা। বকখালি, দিঘা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন। প্রাকৃতিক দুর্যোগের মোকাবিলায় অনেক আগে থেকেই তৎপর প্রশাসন। শনিবার বিকেলেই নবান্নের কন্ট্রোল রুমে পৌঁছে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দফায় দফায় বৈঠক করছেন প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে। নিজেই পরিচালনা করছেন ত্রাণ ও উদ্ধারকাজ।

নবান্নের কন্ট্রোল রুমেই বসেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “মূল অভিঘাত কেটে গেছে। তবে যতক্ষণ না পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, কেউ অপ্রয়োজনে বাইরে বেরোবেন না।” সাগরদ্বীপের উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২৫ কিলোমিটার। স্থলভাগে ঢোকার পরে তার বেগ বেড়ে হয়েছে ঘণ্টায় ১৩০ কিলোমিটার। ইতিমধ্যেই সাগরদ্বীপ ও সুন্দরবনে বেশ কিছু মাটির বাড়ি ভেঙে গেছে, গাছপালা উপড়ে রাস্তাঘাট বন্ধ। ত্রাণশিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন বহু মানুষ।

মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, ঠিক কতটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সেটা এখনও বোঝা যাচ্ছে না। তবে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছেন প্রশাসনিক কর্তারা। তৎপর রয়েছে উদ্ধারকারী দলও। সারা রাত জেগে উদ্ধারকাজ তদারকি করবেন জেলাশাসক, পুলিশকর্তারা। বিভিন্ন সাইক্লোন সেন্টারে ২ লক্ষ ৪০ হাজার খাবার জলের পাউচ পাঠানো হয়েছে। ১ লক্ষ ৬৪ হাজার মানুষকে নিরাপদ স্থানে পাঠানো হয়েছে। প্রায় ৩১৮টি শরণার্থী শিবিরে ঠাঁই মিলেছে ১ লক্ষ ১২ হাজার মানুষের। প্রশাসনের থেকে সবুজ সঙ্কেত না মেলা পর্যন্ত ত্রাণশিবিরেই রাখা হবে আশ্রিতদের।

নবান্নের কন্ট্রোল রুমে মুখ্যমন্ত্রী

স্থলভাগে ঢোকার পরে বুলবুলের শক্তি বেড়ে হয়েছে ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। তছনছ সাগরদ্বীপ, সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা। নবান্নের কন্ট্রোল রুমে বসে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

The Wall এতে পোস্ট করেছেন শনিবার, 9 নভেম্বর, 2019

হাওয়া অফিস জানিয়েছে, উপকূলবর্তী এলাকায় ইতিমধ্যেই ঝড়ের বেগ ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনায় ১০০-১১০ কিলোমিটার/ঘণ্টা। কলকাতা, হাওড়া, হুগলিতে প্রতি ঘণ্টায় ৬৫-৮৫ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইছে। বুলবুলের প্রভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে সাগর, ধবলাহাট, শিবপুর, সাগর ব্লকের চেমাগুড়ি, মৌসুনি, বকখালি এবং ফ্রেজারগঞ্জ এলাকায়। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, আগামীকাল সকাল থেকে ড্রোন উড়িয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় নজরদারি চালানো হবে।

আরও পড়ুন:

বুলবুল কেড়েছে আশ্রয়, শুকনো মুড়ি খেয়ে ত্রাণশিবিরে কাটছে রাত

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More