সোমবার, আগস্ট ২৬

হিংসায় প্ররোচনা দিয়েছেন দিলীপ! হেয়ার স্ট্রিট থানায় এফআইআর চন্দ্রিমার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিজেপি রাজ্যসভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে হেয়ার স্ট্রিট থানায় এফআইআর করলেন রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। অভিযোগ, একুশের সমাবেশমুখী তৃণমূলকর্মীদের বাস আটকে হামলায় প্রকাশ্যে উস্কানি দিয়েছেন দিলীপ। চন্দ্রিমার দাবি, বিজেপি রাজ্য সভাপতি ফৌজদারি অপরাধ করেছেন।

এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়ার জন্য দিলীপ ঘোষের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু তাঁকে ফোনে পাওয়া যায়নি। পরে প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেলে এই প্রতিবেদনে আপডেট করা হবে।

চন্দ্রিমা বলেন, “শুক্রবার দিলীপ ঘোষ বলেছেন, একুশের সমাবেশের উদ্দেশে যে সমস্ত বাস ও অন্যান্য গাড়ি আসবে, বিজেপিকর্মীরা সেগুলি আটকে কাটমানি ফেরত চাইবে।” শাসক দলের বক্তব্য, এই বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে মেদিনীপুরের সাংসদ হিংসায় উস্কানি দিয়েছেন।

এফআইআর প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেন, “দিলীপদা ও ভাবে বলেননি। বলেছেন, সাধারণ মানুষ যদি কাটমানি ফেরত চান তাহলে বিজেপি পাশে দাঁড়াবে।” একই সঙ্গে তৃণমূলের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারির সুরে সায়ন্তন বলেন, “একটা এফআইআর করে বিজেপি-কে আটকানো যায় না। কাল থেকে যদি তৃণমূলের উস্কানির বিরুদ্ধে বিজেপি এফআইআর করতে শুরু করে তাহলে সারা দেশে প্রতিদিন ১০০টা করে এফআইআর হবে। তৃণমূলের সামলানোর দম আছে তো?”

প্রসঙ্গত, রাজ্য বিজেপি-র যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকার ইতিমধ্যেই বলেছেন, হুগলি জেলার যুব মোর্চার কর্মীরা ডানকুনিতে তৃণমূলকর্মীদের বাস থামিয়ে কাটমানি ফেরত চাইবে। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করেছিলেন, বিজেপি যদি রবিবারের রাস্তায় এই কর্মসূচি নিয়ে নামে, তাতে সংঘর্ষ অনিবার্য হয়ে পড়বে। তবে সমাবেশের আগের রাতে রাজ্য বিজেপির সর্বোচ্চ নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর নতুন উত্তাপ তৈরি করল বলেই মত পর্যবেক্ষকদের।

Comments are closed.