রবিবার, আগস্ট ২৫

বলি ইন্ড্রাস্ট্রির আর্ট ডিরেক্টর ছিলেন কোন্নগরের কৃষ্ণেন্দু, ব্যবসায়িক শত্রুতার জেরেই কি খুন? ধন্দে পুলিশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গোরেগাঁওতে নিজের ফ্ল্যাট থেকে অনেকটাই দূরে খাদের মধ্যে পড়েছিল কোন্নগরের শিল্পী কৃষ্ণেন্দু চৌধুরীর দেহ। সারা দেহ ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়েছিল। পচন ধরেছিল দেহে। পুলিশ জানিয়েছে, খুনই করা হয়েছিল কৃষ্ণেন্দুকে। ব্যবসায়িক শত্রুতার জেরেই এই খুন বলে প্রাথমিক তদন্তে ধারণা পুলিশের।

গোরেগাঁওয়ের ফ্ল্যাটে কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গেই থাকতেন তাঁর এক বন্ধু চিন্ময় মণ্ডল। বলেছেন, “বৃহস্পতিবার সন্ধে নাগাদ কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গে শেষ কথা হয় আমার। ও বলেছিল একটা মিটিং সেরেই ফ্ল্যাটে ফিরে আসবে। রাত ৯টায় শেষ বার হোয়াটসঅ্যাপে অনলাইন দেখেছিলাম। তার পর আর যোগাযোগ করতে পারিনি।” চিন্ময় জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাতে চার-পাঁচ বার ফোন করেন কৃষ্ণেন্দুকে। তিনি ফোন তোলেননি। হুগলির কোন্নগরে তাঁর বাড়িতে ফোন করেও জানতে পারেন, সন্ধে নাগাদ মায়ের সঙ্গেও কথা বলেছিলেন কৃষ্ণেন্দু। তার পর থেকে বাড়ির লোকজনও তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি।

কোন্নগরের স্কুলের পরে দমদমের আর্ট কলেজে পড়াশোনা করেছিলেন কৃষ্ণেন্দু। ২০০৮ সালে পাড়ি দেন মুম্বই। গোরেগাঁওতে তাঁর একটি ডিজাইন সংস্থা রয়েছে নাম ‘পার্পল মাইন্ড।’ ২০১৫ সালে আইল্যান্ড সিটি’ নামে এক হিন্দি ছবির আর্ট ডিরেক্টর ছিলেন তিনি। শিল্পনির্দেশনা করতেন। নিজেও চিত্রশিল্পী ছিলেন। বলি ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বহু বছর। মুকেশ অম্বানী থেকে মুম্বইয়ের নামী দামি সেলিব্রিটিদের সঙ্গেও কাজ করেছে তাঁর সংস্থা।

কৃষ্ণেন্দুর প্রতিবেশী এবং কর্মচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জেনেছে, গোরেগাঁওয়ের অফিস থেকে বেরিয়ে ব্যবসার জন্য়ই তিনি কারোর সঙ্গে মিটিং করতে গিয়েছিলেন। তার পর থেকে কার্যত নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন কৃষ্ণেন্দু। পুলিশের ধারণা. ব্যবসায়িক শত্রুতার জেরেই তাঁকে খুন করা হয়েছে। কৃষ্ণেন্দুর সারা শরীর ধারালো অস্ত্র দিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হয়েছিল। বস্তায় ভরে গাড়ির ডিকিতে করে নিয়ে গিয়ে সেই দেহ ফেলা হয়েছিল খাদের মধ্যে। তিন দিন ধরে সেখানেই পড়েছিল দেহ। পচন ধরে গিয়েছিল। রবিবার মুম্বই পৌঁছে শিল্পীর ভাই দিব্যেন্দু সরকার দেহ সনাক্ত করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। খুনের সময়ে কৃষ্ণেন্দুর সঙ্গে থাকা ল্যাপটপ, গাড়ি, ফোন উদ্ধার করেছে পুলিশ।

Comments are closed.