রবিবার, জানুয়ারি ১৯
TheWall
TheWall

দু’বছরে ৬ হাজার যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ উবারে, রিপোর্ট দেখে তাজ্জব প্রশাসন

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাতের পথে সুরক্ষিত বাড়ি ফেরার জন্য অ্যাপ ক্যাবই অন্যতম ভরসা মহিলাদের। কিন্তু সেখানেও মহিলারা সুরক্ষিত কি? লাখ টাকার প্রশ্ন এখন সেটাই। মহিলা যাত্রীদের সঙ্গে আপত্তিকর আচরণ, কুৎসিত অঙ্গভঙ্গির অভিযোগ, শ্লীলতাহানি, ধর্ষণের ভুরিভুরি অভিযোগ দায়ের হয়েছে উবার চালকদের বিরুদ্ধে। তবে সাম্প্রতিক রিপোর্ট চমকে দিয়েছে পুলিশ কর্তাদের। ২০১৮ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত ছ’হাজারেরও বেশি যৌন কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটেছে উবারে।

এই রিপোর্ট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের। তবে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশেও এমনই তথ্য মিলেছে। নিউ ইয়র্ক পুলিশের অপরাধ দমন শাখার রিপোর্ট বলছে, গত বছর মার্কিন মুলুকের রাস্তায় ১৩০ কোটি রাইড ছিল উবারের। তার মধ্যে ধর্ষণ, শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটেছে হাজারের বেশি। জোরজবরদস্তি গায়ে হাত দেওয়া, কুৎসিত অঙ্গভঙ্গি ও মন্তব্য, আপত্তিকর যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ আচরণের অভিযোগও রয়েছে অজস্র।

আরও পড়ুন: গলায় কোপ, পা ভেঙে আগুন ধরিয়েছিল ধর্ষকরা, যন্ত্রণার কথা বললেন উন্নাওয়ের নির্যাতিতা

পুলিশ জানিয়েছে, তদন্তে দেখা গেছে বেশিরভাগ উবার চালকদেরই বৈধ রেজিস্ট্রি নেই। তাদের নাম, পরিচয় সম্পর্কে বিশদ তথ্যও রাখেনি সংস্থা কর্তৃপক্ষ। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, অপরাধের পরে নাম বদলে অন্য রাজ্যে পালিয়ে গেছে চালক।

২০১৭ সালে নিউ ইয়র্কের এক মহিলাকে ধর্ষণ করে এক উবার চালক। এই ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখান লোকজন। উবার চালকদের বিরুদ্ধে এমন ঘৃণ্য অপরাধের অভিযোগ নিয়ে মামলা দায়ের করেন আরও ১৯ জন মহিলা। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ওই বছরই  ২,৯৩৬ যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ দায়ের হয় উবার চালকদের বিরুদ্ধে। ২০১৮ সালে এই অভিযোগই ছিল ৩,০৪৫টি। সংস্থার দাবি, নানা কারণে ৪০ হাজার উবার চালকের লাইসেন্স ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন: কোন দেশে ধর্ষণের সাজা কেমন, কোথাও লিঙ্গচ্ছেদ, কোথাও মুণ্ডচ্ছেদ

রিপোর্ট বলছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে আরও ৭৫টি দেশে উবার চালকদের বিরুদ্ধে এমন যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ সামনে এসেছে। তার মধ্যে সামনের সারিতেই রয়েছে আমাদের দেশ। সারা দেশেই বার বার মহিলা যাত্রীদের সঙ্গে অভব্য আচরণের তকমা লেগেছে উবারের গায়ে। স্বাভাবিক ভাবেই বার বার ঘটতে থাকা বিপদের ঘটনায় নিরাপত্তার অভাবে প্রশ্নের মুখে এসে দাঁড়িয়েছে মোবাইল-অ্যাপ নির্ভর এই ট্যাক্সি পরিষেবা।

Share.

Comments are closed.