শনিবার, জানুয়ারি ২৫
TheWall
TheWall

সোদপুরে তৃণমূল-বিজেপি তুমুল সংঘর্ষ, পুলিশের লাঠিচার্জ, বাতিল দিলীপের কর্মসূচি

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের সংঘর্ষে তুমুল উত্তেজনা ছড়াল উত্তর চব্বিশ পরগনার সোদপুরের ঘোলা বোর্ডঘর এলাকায়। সংঘর্ষে দু’পক্ষেরই বেশ কয়েক জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামাতে হল বিরাট পুলিশবাহিনী। উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে চালাতে হল লাঠিও।

এদিন ওই এলাকায় বিজেপির রাজ্যসভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষের কর্মসূচি ছিল। উত্তেজনার পর বিজেপি নেতৃত্ব ওই কর্মসূচি বাতিল করে দেয়। ঘটনার সূত্রপাত তিন বিধানসভার উপনির্বাচনের ফল প্রকাশের রাত থেকে। বিজেপির অভিযোগ, বৃহস্পতিবার রাতেই ঘোলা থানা এলাকার একাধিক জায়গায় বিজেপির পার্টি অফিসে হামলা চালায় তৃণমূলের গুণ্ডাবাহিনী। বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে বাড়িতে ঢুকে মারধরও করা হয় বলে অভিযোগ। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাত পর্যন্ত বিজেপি ও তৃণমূলকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা চলে।

তৃণমূলের জমায়েত

এরপরই শনিবার সকালে জানা যায়, বিজেপির রাজ্য সভাপতি ওই এলাকায় যাবেন, ঘুরে দেখবেন ভাঙচুর হওয়া পার্টি অফিসগুলি। বাড়ি বাড়ি গিয়ে ‘আক্রান্ত’ দলীয়কর্মীদের সঙ্গে দেখাও করার কথা ছিল দিলীপ ঘোষের। রাজ্যসভাপতি আসার খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিসের সামনে জমায়েত করে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের জমায়েত ও দিলীপের আসার খবর পেয়ে পাল্টা জমায়েত করে তৃণমূলও। আর সেই থেকেই সংঘর্ষ শুরু।

বিজেপির জমায়েত

তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি কর্মীরা লাঠি, বাঁশ হাতে জমায়েত করেছিল। ওরা শান্ত এলাকাকে অশান্ত করতে শক্তিপ্রদর্শন করছে। শাসকদলের এক তরুণ নেত্রী বলেন, “ওরা পঞ্চায়েত দখল করতে চেয়েছিল। আমরা সেটা হতে দেব না। দিলীপ ঘোষ এখানে অশান্তি পাকাতে আসতে চাইছেন।” পাল্টা বিজপির এক নেতার বক্তব্য, “তিনটে উপনির্বাচন জিতে সন্ত্রাস শুরু করেছে তৃণমূল। প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে, বিজেপির ঝান্ডা ধরলে এলাকায় থাকতে দেবে না। আমরা প্রতিবাদ করেছি বলেই লোকলস্কর নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে।”

গত একমাস ধরেই এই এলাকা তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে বারবার উত্তপ্ত হয়েছে। সপ্তাহ দুয়েক আগে অর্জুন সিং-এর নেতৃত্বে একটি মিছিল নিয়েও ঘোলা থানার সামনে রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল। তারপর আবার এমন ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকার মানুষ।

Share.

Comments are closed.