বুধবার, নভেম্বর ১৩

সাঁড়াশি দিয়ে নাবালিকা পরিচারিকার মাথা ফাটালেন জয়েন্ট বিডিও-র স্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এ কী শুরু হয়েছে উত্তরবঙ্গে! স্বামী প্রশাসনিক পদে থাকলে কি স্ত্রীও ভেবে নিচ্ছেন যা ইচ্ছে তাই করা যায়? আলিপুরদুয়ারের ডিএম কাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই এ বার সামনে এল কালচিনির জয়েন্ট বিডিও-র স্ত্রীর ঘটনা।

কী করেছেন তিনি?

শীতের সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয়ে গিয়েছিল নাবালিকা পরিচারিকার। আর এতেই কালচিনির জয়েন্ট বিডিও অংশুমান দত্তের স্ত্রী শুভ্রা দত্ত রণংদেহি ওঠেন বলে অভিযোগ। রাগ এতটাই যে, সাঁড়াশি দিয়ে ওই পরিচারিকার মাথা ফাটিয়ে দেন তিনি। মেয়েটির কান্না শুনে প্রতিবেশীরাই খবর দেন পুলিশে। এরপর পুলিশ এসে আটক করে বিডিও-পত্নীকে।

কালচিনির জয়েন্ট বিডিও অংশুমান দত্ত স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন কোচবিহারের দক্ষিণ খাগড়াবাড়ি এলাকায়। এ দিন সকালে এমন ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। রক্তাক্ত অবস্থায় নাবালিকা পরিচারিকাকে নিয়ে যেতে হয় হাসপাতালে।

দিন দশেক আগেই শিরোনামে এসেছিল আলিপুর দুয়ারের ডিএম নিখিল নির্মল এবং তাঁর স্ত্রী নন্দিনী কৃষ্ণণের তাণ্ডবের ঘটনা। ফালাকাটা থানায় ঢুকে, পুলিশি হেফাজতে থাকা এক যুবককে বেধড়ক মেরেছিলেন নিখিল এবং নন্দিনী। মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল ওই ভিডিও। ডিএম-এর শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছিল আইএএস অ্যাসোসিয়েশনও। ওই ঘটনায় প্রথমে তাঁকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠায় নবান্ন। এরপর রাজ্যের সচিবালয় আবেদন জানায় জাতীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে। যেহেতু এখন ভোটার তালিকা সংশোধনের কাজ চলছে, সেহেতু সমস্ত জেলাশাসকই জাতীয় নির্বাচন কমিশনের আওতায় রয়েছেন। এরপর  জাতীয় নির্বাচন কমিশনের থেকে সবুজ সংকেত পাওয়ার পর নিখিল নির্মলকে আলিপুরদুয়ারের ডিএম-এর পদ থেকে সরিয়ে আনা হয় আদিবাসী উন্নয়ন পর্ষদের ম্যানেজিং ডিরেক্টরের পদে। শুভ্রা দত্তের ঘটনা দেখে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর মন্তব্য, কিছু আমলার স্ত্রীর মাথায় ক্ষমতা চড়ে গিয়ে এই অবস্থা হয়েছে।

Comments are closed.