বুধবার, অক্টোবর ১৬

সেপ্টেম্বরের শেষেও বৃষ্টির পূর্বাভাস, পুজোতেও কি ভাসবে শহর? কী বলছে হাওয়া অফিস

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সপ্তাহের প্রথম দিন সকাল থেকেই মুখভার আকাশের। দু-এক ঝলক রোদের দেখা মিললেও সকালের দিকেই বেশ কিছু জায়গায় শুরু হয়েছে হাল্কা বৃষ্টিও। বেলা বাড়লেই ঝেঁপে বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস হাল্কা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে দক্ষিণবঙ্গে। এই মুহূর্তে ভারী বৃষ্টির কোনও পূর্বাভাস নেই। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সঙ্গে বইতে পারে ঝোড়ো হাওয়াও।

সোমবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসসিয়াস। এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে এ দিন সকালের দিকে পারদ ছিল ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে। হাল্কা বৃষ্টি এবং বেশ কিছু এলাকায় ঠান্ডা হাওয়া বইতে থাকার ফলে আবহাওয়া ছিল মনরম। কিন্তু আজ কলকাতায় আর্দ্রতার পরিমাণ ৭৬ শতাংশ। ফলে বেলা বাড়লে তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কাও রয়েছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দেবে আর্দ্রতাও। ফলে বৃষ্টি হলেও মিলবে না স্বস্তি। রোজের মতো ভ্যাপসা-গুমোট গরমে রাস্তাঘাটে ঘেমেনেয়ে নাজেহাল হবে আম জনতা।

যদিও হাওয়া অফিস জানিয়েছে ২৪ সেপ্টেম্বরের পর বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরির সম্ভাবনা রয়েছে। এই নিম্নচাপ তৈরি হলে বাড়বে বৃষ্টির পরিমাণ। হয়তো প্যাচপ্যাচে গরমের হাত থেকে রেহাই পাবেন দক্ষিণবঙ্গবাসী। কিন্তু তার পাশাপাশি অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে দুর্গাপুজোর সময় শহর ভাসতে পারে বলেও আশঙ্কা করছেন আবহবিদরা। এমনিতেই গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে ব্যবসায় বেশ ক্ষতি হয়েছে ছোট ব্যবসায়ীদের। পুজোর আগে বৃষ্টি বাড়লে ব্যবসায় আরও ক্ষতির আশঙ্কায় মাথায় হাত পড়েছে ছোট দোকানদারদের।

চলতি মরশুমে বঙ্গে বর্ষা এসেছে দেরিতে। তাই যে সময়ে বর্ষার বিদায় নেওয়ার কথা, অর্থাৎ সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় ভাগ, সেই সময়েই মৌসুমি বায়ু ঘাটতি পূরণ করতে পারে বলে আশঙ্কা হাওয়া অফিসের।

Comments are closed.