সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩

নিম্নচাপ, সঙ্গে জোড়া ঘূর্ণাবর্ত, তীব্র গরমের পর অবশেষে স্বস্তির বৃষ্টি শহরে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পূর্বাভাস ছিলই। আর সেই মতোই বুধবার সকাল থেকেই মেঘলা রয়েছে আকাশ। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, জোড়া ঘূর্ণাবর্ত এবং নিম্নচাপের জেরে আজ সারাদিন বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। হাওড়া, হুগলি, দুই চব্বিশ পরগনায় বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করছে হাওয়া অফিস। অবশেষে স্বস্তির বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে শহর কলকাতা।

আবহবিদরা জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের উপর সৃষ্টি হয়েছে একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখার। পাশাপাশি ঝাড়খণ্ড এবং বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে জোড়া ঘূর্ণাবর্ত। ফলে আগামী কয়েকদিন বৃষ্টি চলবে দক্ষিণবঙ্গে। বেশ কিছু জেলায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস। আগামী ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। মঙ্গলবার রাত থেকেই দক্ষিণবঙ্গের বেশ কিছু জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে বৃষ্টি শুরু হয়েছিল। বুধবার সকাল হতেই বৃষ্টির পরিমাণ বেড়েছে বেশ কয়েকটি জেলায়। তবে কোথাও কোথাও হাল্কা বৃষ্টি হচ্ছে বলেও জানা গিয়েছে।

বুধবার সকাল থেকেই আকাশ আংশিক মেঘলা থাকায় এক ধাক্কায় শহরের পারদ নেমেছে বেশ কিছুটা। তবে কলকাতার পারদ ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশেই থাকবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। এর থেকে বেশি হেরফের হবে না তাপমাত্রায়। তবে আপাতত এই বৃষ্টিতে সাময়িক ভাবে হলেও স্বস্তি পাবেন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বাসিন্দারা। চরম আর্দ্রতার কারণে ভ্যাপসা গরমের হাঁসফাঁস থেকে এ বার রেহাই পাবেন দক্ষিণবঙ্গবাসী। মঙ্গলবার শহরের তাপমাত্রা ছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে, যা স্বাভাবিকের তুলনায় কিছুটা বেশি। তবে বুধবার সকাল থেকে মেঘলা আকাশ, কম আর্দ্রতা এবং বৃষ্টির জন্য তাপমাত্রা নেমেছে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি।

দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলার পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের পাঁচ জেলাতেও আগামী ৪৮ ঘণ্টা ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। আগামী দু’দিন ধক্ষিণবঙ্গেও বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর হাওয়া অফিস।

Comments are closed.