বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭

একাদশীর ভোররাত থেকে তেড়ে বৃষ্টি, বজ্রপাতের সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়াও

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দুর্গাপুজো শেষ হলেও বর্ষা বিদায় নেওয়ার কোনও লক্ষণই নেই। একাদশীর ভোররাত থেকেই তেড়ে বৃষ্টি শুরু হয়েছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টির সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়াও। বিভিন্ন জেলার বেশ কিছু জায়গায় ইতিমধ্যেই জল জমে গেছে বলে খবর।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর আগেই জানিয়েছিল যে, নবমী থেকে বাড়তে পারে বৃষ্টির পরিমাণ এবং স্থায়িত্ব। দু-একপশলা হাল্কা বৃষ্টির বদলে বেশ খানিকক্ষণ টানা বৃষ্টি হতে পারে। পূর্বাভাস মেনেই নবমীর সকাল থেকে বৃষ্টি শুরু হয়েছিল কলকাতায়। বেলা গড়াতেই বাড়ে বৃষ্টির পরিমাণ। দশমীর দিনও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির খবর মিলেছে।

হাওয়া অফিস জানিয়েছে, ঝাড়খণ্ডের উপর একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি সক্রিয় রয়েছে মৌসুমী বায়ুও। এই দুইয়ের জেরেই বৃষ্টি হচ্ছে দক্ষিণবঙ্গে। বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে উত্তরের জেলাগুলিতেও। আজ শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসসিয়াস। ভোররাত থেকে টানা বৃষ্টির কারণে এক ধাক্কা পারদ নেমেছে অনেকটাই।

আজ সারাদিনই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হতে পারে কলকাতাতেও। প্রভাব পড়বে উপকূলের জেলাগুলিতেও। বইতে পারে ঝোড়ো হাওয়া। এ বছর নির্ধারিত সময়ের তুলনায় বেশ খানিকটা দেরিতে এসেছে বর্ষা। তাই যে সময়ে বাংলা থেকে বর্ষার বিদায় নেওয়ার কথা, সেই সময়েই ঘাটতি মেটাচ্ছে সক্রিয় মৌসুমী বায়ু।

দুর্গা পুজো মিটলেও অধিকাংশ জায়গাতেই এখনও বাকি মায়ের বিসর্জন। একাদশীর দিন সকাল থেকে টানা বৃষ্টি দেখে অনেকেই বলছেন, বিসর্জনের প্ল্যান ভেস্তে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Comments are closed.