মঙ্গলবার, নভেম্বর ১২

ধৃত সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের ২ দিনের পুলিশ হেফাজত, নির্দেশ পুরুলিয়া জেলা আদালতের

দ্য ওয়াল ব্যুরো,পুরুলিয়া: সাইবার অপরাধের অভিযোগে ধৃত প্রদেশ কংগ্রেসের অন্যতম মুখপাত্র সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে দু’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিল পুরুলিয়া জেলা আদালত। বৃহস্পতিবার রাতে খড়দহ থানার আগরপাড়া ইলিয়াস রোডের বাড়ি থেকে তাঁকে আটক করে পুরুলিয়া জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখার বিশেষ দল। শুক্রবার দুপুরে এই কংগ্রেস নেতাকে জেলা আদালতে তোলা হলে বিচারক রিম্পা রায় দু’দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দেন। খারিজ করে দেওয়া হয় সন্ময়বাবুর জামিনের আবেদন।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর পুরুলিয়ার সাইবার ক্রাইম থানায় সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন আইনজীবী তথা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের পুরুলিয়া জেলার কার্যকরি সভাপতি প্রণব দেওঘরিয়া। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কুরুচিকর ও ভিত্তিহীন বক্তব্যের অভিযোগ আনা হয় সন্ময়বাবুর বিরুদ্ধে। তার ভিত্তিতেই পুরুলিয়া জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখা গতকাল এই কংগ্রেস নেতাকে আটক করে।

সন্ময়বাবুর বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ আনা, কুৎসা করা, তাঁদের হেয় করা-সহ একাধিক ধারায় মামলা রুজু করে পুলিশ। মামলা হয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি আইনেও।

সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা বাংলার শাসক দলের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে গত কয়েক মাস ধরে ঝাঁঝালো সমালোচনা করছিলেন কংগ্রেস মুখপাত্র সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। একটি ইউটিউব চ্যানেলও খুলেছিলেন তিনি। সেখানে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে সন্ময়বাবু শাসক দলের ধারাবাহিক সমালোচনায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করার জন্য এর আগে সন্ময়বাবুর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল নন্দীগ্রাম থানায়। শুভেন্দুবাবুর এক অনুরাগী সেই মামলা করেছিলেন। কিন্তু ওই ঘটনায় সন্ময়বাবু উকিলের মাধ্যমে চিঠি দিয়ে পরিবহণমন্ত্রীর কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে নেন। তারপর নন্দীগ্রামে দায়ের করা মামলাটি নিয়ে সন্ময়বাবুকে পুলিশ আর হেনস্থা করেনি বলেই খবর।

সন্ময়বাবুর দাদা তন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, “শাসক সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে সন্ময় ধারাবাহিক লেখা লিখছিলেন। শাসক নেতাদের স্বরূপ তুলে ধরছিলেন। রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র করেই তাঁকে গ্রেফতার করানো হয়েছে।” সন্ময়কে গ্রেফতারের প্রতিবাদে এ দিন খড়দহ থানা ঘেরাও করেন যুব কংগ্রেসের কর্মীরা। অন্যদিকে পুরুলিয়ার কংগ্রেস নেতা নেপাল মাহাতো বলেন, পুলিশ যে পদক্ষেপ করেছে তা নিন্দনীয়। সন্ময়বাবুর জামিনের জন্য আইনি লড়াই চালাবে কংগ্রেস। আগামী রবিবার প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই গ্রেফতারির প্রতিবাদে জেলায় জেলায় পথ অবরোধ কর্মসূচির ডাক দেওয়া হয়েছে।

পড়ুন, দ্য ওয়ালের পুজোসংখ্যার বিশেষ লেখা…

Comments are closed.