বুধবার, জুন ১৯

‘মুন্ডু কেটে ফুটবল খেলব, জয় শ্রীরাম’, পোস্টার উদ্ধার তৃণমূল নেতার বাড়ির দেওয়ালে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মনে পড়ে ২০০৭-১১ পর্যন্ত জঙ্গলমহলের ছবিটা? লালগড়, জামবনি, শালবনিতে তখন সিপিএম নেতাকর্মীদের লাশ উদ্ধারের ঘটনা প্রায় রোজনামচায় পরিণত হয়েছিল। আর প্রতিটা লাশের পাশে আলতা দিয়ে অপটু হাতের লেখা পোস্টার। ঘোষণা করেই সিপিএম নেতাদের ‘শ্রেণি শত্রু’ চিহ্নিত করে গণ আদালতে শাস্তি দিত মাওবাদীরা। এ বার ঠিক একই রকম পোস্টার উদ্ধার হল উত্তর দমদম পুরসভার নিমতায় তৃণমূল নেতা নির্মল বালার বাড়িতে।

সরাসরি মুণ্ডু কেটে নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে এই পোস্টারে। সেখানে লেখা হয়েছে, “তৃণমূল করছিস নির্মল বালা। তোর মুন্ডু কেটে ফুটবল খেলব। আরো অনেকে আছে। জয় শ্রী রাম। বিজেপি জিন্দাবাদ।’

বুধবার সকালে দক্ষিণ প্রতাপগড় এলাকার তৃণমূল নেতা নির্মলবাবুর বাড়িতে এই পোস্টার উদ্ধার দেখতে পান স্থানীয়রা। খবর দেওয়া হয় নিমতা থানায়। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। যদিও বিজেপি এই ঘটনায় তাদের দলের যোগের কথা অস্বীকার করেছে। স্থানীয় বিজেপি নেতা অসীম পোড়েল বলেন, “ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে কেউ বা কারা ওই পোস্টার লাগিয়েছে। এর সঙ্গে বিজেপির যোগ নেই। ব্যক্তিহত্যার রাজনীতিতে বিজেপি বিশ্বাস করে না।”

লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকেই উত্তর দমদমের একাধিক এলাকা উত্তপ্ত। মঙ্গলবার নিমতায় দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হন ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সভাপতি নির্মল কুণ্ডু। পাড়ার মোড়ে দাঁড়িয়ে গল্প করছিলেন নির্মল। মোটর সাইকেলে চেপে দু’জন দুষ্কৃতী পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে নির্মলকে মাথা লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন নির্মল। মৃত্যু হয় তাঁর। ওই ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ফের এক তৃণমূল নেতার মুণ্ডু কেটে নেওয়ার হুমকি দিয়ে পোস্টার উদ্ধার হল এ দিন। সব মিলিয়ে উত্তর দমদমের রাজনৈতিক উত্তেজনা ক্রমেই চরমে উঠছে।

মঙ্গলবার মহারাষ্ট্র নিবাস হলে বিজেপি-র বৈঠকে নিচু তলার এই ঘটনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় স্পষ্ট করে অই বৈঠকে বলছেন, এই নিয়ন্ত্রণ আনতেই হবে। পর্যবেক্ষকদের মতে, ভোটে বিপুল জয় পাওয়ার পর অনেক সময়েই নিচুতলা পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ দলের রাজ্য নেতৃত্বের হাতে থাকে না। তবে গেরুয়া শিবিরও এ ব্যাপারে উদ্বিগ্ন।

Comments are closed.