বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭

গ্রামে গ্রামে ফুটবে জোড়াফুল, আবার উড়বে আমাদের ঝাণ্ডা, পুরুলিয়ার সভায় বললেন শুভেন্দু

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একুশে জুলাইয়ের প্রস্তুতিসভা থেকে ইভিএম থেকে ব্যালটে ফেরার দাবিতে আন্দোলন শুরুর ডাক দিলেন রাজ্যের পরিবহণ ও সেচমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। মঙ্গলবার পুরুলিয়া শহরের ট্যাক্সি স্ট্যান্ডের জনসভা থেকে এ কথাই বলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

অনেক দিন আগেই দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ডাক দিয়েছিলেন এ বার একুশে জুলাইয়ের স্লোগান হবে ইভিএম নয় ব্যালট চাই। পুরুলিয়ার প্রস্তুতি সভায় সেই স্লোগানই তুললেন শুভেন্দু। আহ্বান জানালেন, সামনের রবিবারের সমাবেশকে ঐতিহাসিক করে তোলার। ভোটে বিপর্যয়ের পর যখন তৃণমূলের অনেক তাবড় নেতার মনেই সংশয় তৈরি হয়েছে একুশের জমায়েত কেমন হবে তা নিয়ে, তখন প্রস্তুতি সভায় কার্যত চষে বেড়াচ্ছেন শুভেন্দু। কেশপুর, ঝাড়গ্রাম, খণ্ডঘোষ, এগরা, খেজুরি, জলপাইগুড়ির পর আজ পুরুলিয়া।

এ দিনের জনসভায় শুভেন্দু বলেন, “কেউ কেউ কুৎসা করছেন। আমি তাঁদের বলতে চাই, ক্লাস ইলেভেন থেকে ছাত্র রাজনীতি করি। সাত বছর সাংসদ ছিলাম। তারপর দিদি নন্দীগ্রাম থেকে জিতিয়ে তিনটি দফতরের দায়িত্ব দিয়েছেন। মানুষের সঙ্গে মিশে সারা দিন থাকাটাই আমার কাজ।” এ বার পুরুলিয়া-সহ জঙ্গলমহলে তৃণমূল ব্যাপক ভোটে হেরেছে। গণভিত্তিতে নেমেছে ধস। এ দিনের সমাবেশে উপস্থিত কর্মীসমর্থকদের উজ্জীবিত করতে শুভেন্দু বলেন, “আবার আগামী দিনে পুরুলিয়ার গ্রামে গ্রামে জোড়া ফুল ফুটবে। আবার পুরুলিয়া শহরে তৃণমূলের ঝাণ্ডা উড়বে।”

এ বার ভোটে জঙ্গলমহলে বিপর্যয় হয়েছে তৃণমূলের। কার্যত ধুয়ে মুছে সাফ। তারপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দায়িত্ব বদল করেন। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সীদের জঙ্গলমহলের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেন। শুভেন্দুর কাঁধে দেওয়া হয় রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের দায়িত্ব। অথচ একটা সময়ে এই এলাকা দেখতেন তিনিই। অনেকে বলেন, মুকুল রায়ের পরামর্শেই শুভেন্দুকে জঙ্গলমহল তথা লাগোয়া জেলার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেন মমতা। গত কয়েক বছরে ধারাবাহিক ক্ষয় হয়েছে তৃণমূলের। তারপরই দায়িত্ব বদল। সেই দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে কার্যত চষে বেড়াচ্ছেন পরিবহণ ও সেচমন্ত্রী।

Comments are closed.