মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৮
TheWall
TheWall

মালদা কাণ্ড: নীল স্কুটির খোঁজে মোটরবাইকের শোরুমেও শুরু তল্লাশি, জেলা জুড়ে চলছে বিক্ষোভ মিছিল

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

দ্য ওয়াল ব্যুরো, মালদা: অর্ধনগ্ন এবং অগ্নিদগ্ধ যুবতীর দেহ উদ্ধারের ঘটনায় ইতিমধ্যেই সিসিটিভি ফুটেজে একটি নীল স্কুটির হদিশ পেয়েছিল মালদা পুলিশ। সেই স্কুটি এবং মোটরবাইকের খোঁজে শনিবার রাতভর তল্লাশি চলে কোতোয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন গ্রামে। এবার ওই নীল স্কুটি এবং মোটরবাইকের খোঁজে বাইকের শোরুমগুলিতে তল্লাশি শুরু করেছে মালদা পুলিশ।

ইতিমধ্যেই ওই মডেলের কতগুলি স্কুটি বিক্রি হয়েছে তার তথ্য হাতে পেয়েছে তারা। পুলিশ সূত্রে খবর, বিভিন্ন বাইকের শোরুম থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ২০১৯ সালের এখনও পর্যন্ত এই মডেলের ১০০টি মোটরবাইক বিক্রি হয়েছে। মূলত ইংরেজবাজার, হবিবপুর, সামসি, বিহার ঘেঁষা মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর, কুমেদপুর এলাকায় এইসব মোটরবাইক বিক্রি হয়েছে। এইসব গাড়ির মালিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চালাচ্ছে মালদা পুলিশ।

অন্যদিকে মালদার এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সোমবার রাস্তায় নামে স্কুলের ছাত্রীরা। তাদের সঙ্গে সামিল হন স্কুলের শিক্ষিকারাও। নিজেদের নিরাপত্তার দাবি তুলে সোমবার দুপুরে কোতোয়ালি গার্লস হাইস্কুলের এক হাজারেরও বেশি ছাত্রী এদিন প্রতিবাদ মিছিল করে। দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতারির এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় বিক্ষোভকারী ছাত্রীরা। সঙ্গে ছিলেন শিক্ষিকারাও। ছাত্রীদের কথায়, “আমাদের স্কুল থেকে মাত্র ৫০০ মিটার দূরে ওই আমাবাগান থেকে দেহ উদ্ধার হয়েছে। এরপর থেকেই আতঙ্কে রয়েছি আমরা। স্কুলে আসতেও ভয় লাগছে।” 

স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা মানসী দত্ত বলেন, “ওই খুনের ঘটনার পর থেকে এই স্কুলের ছাত্রীদের মধ্যে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে। এদিন সকলের স্বার্থের কথা ভেবে স্কুল ছুটি দিয়েই এই প্রতিবাদ মিছিল করা হয়েছে । স্কুলের ছাত্রীরা এই মিছিলে সামিল হয়েছিল। ওদের সঙ্গে আমরা পালিয়েছি। যেভাবে ওই যুবতীকে খুন করে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে তাতে আমরা আতঙ্কিত। অনেক ছাত্রীরা স্কুলে আসার সাহস পাচ্ছে না । আমরা চাই অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করে তাদের ফাঁসি দেওয়া হোক।”

সোমবার সকালে সিপিএমের মহিলা সমিতির পক্ষ থেকে খুনের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে মালদা শহরে একটি প্রতিবাদ মিছিল করা হয়। পরে পুলিশ সুপারের কাছে একটি ডেপুটেশনও জমা দেওয়া হয়। এছাড়াও রবিবার রাতে শহরের দু’টি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রায় ১০০ জন সদস্য কোতোয়ালিতে ওই যুবতী খুনের ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে মোমবাতি মিছিল করেন।

আরও পড়ুন- মালদায় তরুণীর পোড়া দেহ উদ্ধার তদন্তে এখনও আঁধার, নীল স্কুটি নিয়ে জল্পনা

গত বৃহস্পতিবার সকালে মালদার ইংরেজবাজার থানার কোতোয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের টিপাজানি গ্রামের একটি আম বাগানের মধ্যে থেকে উদ্ধার হয় এক যুবতীর অর্ধনগ্ন এবং অগ্নিদগ্ধ দেহ। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ধর্ষণ করে ওই যুবতীকে খুন করার পর প্রমাণ লোপাটের জন্য আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে দুষ্কৃতীরা। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশেরও অনুমান তেমনটাই। তবে ঘটনার চারদিন পার হয়ে গেলেও এখনও ওই যুবতীর নাম-পরিচয় জানতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশের অনুমান ওই যুবতীর বয়স ২০ থেকে ২২ বছরের মধ্যে। যুবতীর পরিচয় জানতে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তার আধপোড়া দেহ,  হাতের আংটির ছবি দিয়ে পোস্টও করা হয়েছে মালদা পুলিশের তরফে।

সোমবার নতুন করে মালদা জেলা ক্রাইম মনিটরিং টিমের অফিসাররা কোতোয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের টিপাজানি গ্রামের আমবাগানে তদন্তে যান। যেখান থেকে ওই যুবতীর অর্ধনগ্ন এবং অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় দেহ উদ্ধার হয়েছিল সেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন মনিটরিং টিমের অফিসারেরা।

Share.

Comments are closed.